Home | অন্যান্য সংবাদ | সামনে ৭টি সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা

সামনে ৭টি সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা

image_printপ্রিন্ট করুন
ফাইল ছবি

নিউজ ডেক্স : করোনা ভাইরাসের মহামারি তাণ্ডবে বিপর্যস্ত পুরোবিশ্ব। বাদ যায়নি বাংলাদেশও, গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার। ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য বন্ধ ঘোষণা করে দেয়া হয় সব সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

এমন যখন পরিস্থিতি, তখন ভাইরাসটির সংক্রমণ রোধে স্থগিত করে দেয়া হয় বেশকিছু সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা। টানা কয়েকমাস করোনার মহামারি পর এবার সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে সুখবর দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। 

 প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সামনে এসব পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তাই সব পরীক্ষার্থীকে প্রস্তুতি নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে তারা। 

আর বিশ্লেষকরা জানিয়েছে, করোনার কারণে ঘরবন্দি অবস্থাতেই সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা প্রস্তুতি নিতে হবে। মনে রাখতে হবে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যেকোন সময় সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে পারে। তাই এই সময়ের পড়াশোনার পাশাপাশি নিতে হবে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি। এছাড়া সামনের নিয়োগ পরীক্ষা জন্য পড়াশোনার প্রতি মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ তাদের। 

সামনে যে ৭টি সরকরি নিয়োগ পরীক্ষা হতে পারে- 

ব্যাংকের পরীক্ষা: সরকারি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষাও আটকে আছে। যদিও বেশিভাগ ব্যাংকের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা মার্চের শেষ দিকে হওয়ার কথা থাকলেও শেষ সময়ে তা বন্ধ করতে হয়েছে। এই পরীক্ষায় ৬৩৩টি পদের বিপরীতে লক্ষাধিক প্রার্থী আবেদন করেন। অবস্থা স্বাভাবিক হলে সামনে এটি নেওয়া হবে। 

তুলা উন্নয়ন বোর্ডের পরীক্ষা: করোনা সংক্রমণের কারণে বিভাগীয় বাছাই বা নির্বাচন কমিটির সভায় সাময়িকভাবে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ পরীক্ষাও ভালো অবস্থার উপর নির্ভর করছে বলে জানানো হয়।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা: সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তরে নিরাপত্তা প্রহরী (সিকিউরিটি গার্ড) নিয়োগের স্বাস্থ্য পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়েছে।

পিএসসির পরীক্ষা: ৪১তম বিসিএস পরীক্ষার প্রিলিমিনারি পরীক্ষা এ বছরের এপ্রিলে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা কারণে এটি নেওয়া সম্ভব হয়নি। এইচএসসি পরীক্ষার পর সেটি নেওয়ার পরিকল্পনা আছে পিএসসির। তাই এই সময়ে ৪০তম বিসিএসের পরীক্ষার্থীরা ভাইভার জন্য আর ৪১তম বিসিএসের প্রার্থীরা প্রিলিমিনারির পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিতে পারেন, এমন পরামর্শ দিয়েছে পিএসসির।

খাদ্য অধিদপ্তর ও দুদকের পরীক্ষা: খাদ্য অধিদপ্তরের নিয়োগ পরীক্ষা মার্চ-এপ্রিলে এ পরীক্ষা নেয়ার কথা থাকলেও নিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। একই কারণে দুদকের বিভিন্ন পদের পরীক্ষাও আটকে আছে। তবে করোনা পরিস্থিতি দেখে তারা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেবেন।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের পরীক্ষা: গত ২০ মার্চ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে। পরীক্ষা এ বছরের শেষ দিকে হতে পারে বলে জানা গেছে।

ব্যান্সডকের লিখিত পরীক্ষা: বাংলাদেশ ন্যাশনাল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড টেকনিক্যাল ডকুমেন্টেশন সেন্টারের প্রথম শ্রেণির সায়েন্টিফিক অফিসার ও অ্যাকাউন্টস অফিসার পদের নিয়োগ পরীক্ষার বন্ধ রয়েছে। তবে করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন কর্তৃপক্ষ। এটি দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!