Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | ইসহাক মিয়া সড়ক এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে

ইসহাক মিয়া সড়ক এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে

187

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি শাহ সাহেব গেইট সংলগ্ন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরএইচডি হতে শুরু হয়ে পুটিবিলা ইউনিয়নের এমচরহাট পর্যন্ত নির্মিত হয়েছে সাড়ে ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ ইসহাক মিয়া সড়ক। এ সড়ক উপজেলার চুনতি ও পুটিবিলা ইউনিয়নের ১৬টি গ্রাম, ৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং অসংখ্য সামাজিক প্রতিষ্ঠান এবং বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার সাথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হয়েছে। এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি মানবসম্পদ উন্নয়ন ও জাতীয় অর্থনীতিতে এ সড়কটি ব্যাপক ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। গত ২৩ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি ‘ইসহাক মিয়া সড়ক’ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন।

সড়কটি নির্মাণের ফলে চুনতি ও পুটিবিলা ইউনিয়নের মৌলানা পাড়া, জেতবন বৌদ্ধ বিহার বড়–য়া পাড়া, সাতের আগা, বড় ঘোনা, পাঠিয়াল পাড়া, নোয়া পাড়া, পুরান পাড়া, মাঝির পাড়া, পানত্রিশা, উত্তর পানত্রিশা, নারিশ্চা, নারিশ্চা বড়–য়া পাড়া, মাষ্টার পাড়া, কুড়িক্যা পাড়া, কোলার পাড়া, দক্ষিণ হরিণা পাড়ার লোকজন উপকৃত হয়েছে। এছাড়াও সড়কটি উন্নয়নের ফলে চুনতি মাদ্রাসা, চুনতি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উচ্চ বিদ্যালয়, মেহেরুন্নিছা, সাতঘড় নোয়াপাড়া, চান্দা, নারিশ্চা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ও চুনতি শাহ সাহেব মাজার, জেতবন বৌদ্ধ বিহার, লোকনাথ আশ্রম, জাদী পাহাড় বৌদ্ধ বিহার, নারিশ্চা নুরানী মাদ্রাসাসহ অসংখ্য মসজিদ এবং চাম্বি রাবারড্যাম প্রকল্পে যাতায়াতে এলাকাবাসীর যাতায়াত সুগম হয়েছে।

এছাড়াও সড়কটি উন্নয়নে এলাকাবাসী তাদের উৎপাদিত পণ্যদ্রব্য অনায়াসে বাজারজাত করতে পারছে এবং উৎপাদিত পণ্যদ্রব্যের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে। যার ফলে এলাকায় ব্যাপক অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক কর্মকান্ডের প্রসার ঘটবে এবং গ্রামীণ দারিদ্রতা নিরসনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। যা সরকার ঘোষিত ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য অর্জনে সহায়ক হবে এবং সড়কটি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হবে।

জানা যায়, ‘ইসহাক মিয়া সড়ক’ গ্রামীণ পরিবহণ উন্নয়ন প্রকল্প- ২ (Rural Transport Improvement Project-2) এর আওতায় স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল (এলজিইডি)’র অধীনে বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে এ সড়ক নির্মাণ করা হয়। এ সড়কের প্রধান কার্যক্রম রাস্তা উন্নয়ন ৯ কিলোমিটার, রাস্তার প্রস্থ ২৪ ফুট (কার্পেটিং ১৮ ফুট), সেতু ৫টি ও কালভার্ট ১৯টি। ২০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা ব্যায়ে এ সড়কের নির্মাণ কাজ ২০১৫ সনের ৩ সেপ্টেম্বর শুরু ও ২০১৮ সনের ১৫ জুন শেষ হয়।

উল্লেখ্য, ইসহাক মিয়া লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নের চুনতি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীরবিক্রম পিএসসি’র পিতা। ইসহাক মিয়া একজন সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী ও আলোকিত ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তাঁরই নামানুসারে সড়কটি নামকরণ করা হয় ‘ইসহাক মিয়া সড়ক’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*