Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ার কাঁচাবাজারে বন্যার প্রভাব, কষ্টে নিম্ন আয়ের মানুষ

লোহাগাড়ার কাঁচাবাজারে বন্যার প্রভাব, কষ্টে নিম্ন আয়ের মানুষ

image_printপ্রিন্ট করুন

67468082_2374474499299389_8863435158766747648_n (1)

এলনিউজ২৪ডটকম : দেশের বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্ট বন্যা ও টানা বৃষ্টির প্রভাব পড়েছে লোহাগাড়ার কাঁচাবাজারে। লোহাগাড়ায় যেসব এলাকা থেকে সবজি আসে, সে সব এলাকা সম্প্রতি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে পণ্য আসছে না চাহিদামতো। এতে লোহাগাড়ার কাঁচাবাজারে বেশির ভাগ সবজির দাম বেড়েছে। বেশির ভাগ সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনের কাঁচাবাজার ঘুরে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ২শ টাকা, ঢেরস প্রতি কেজি ১শ টাকা, চিচিংগা প্রতি কেজি ৬০ টাকা, ঝিংগা প্রতি কেজি ৮০ টাকা, কাকরল প্রতি কেজি ৭০-৮০ টাকা, বরবটি কেজি ৮০ টাকা, লাল জাতের ভারতীয় টমেটো কেজি ১২০ টাকা, বেগুন কেজি ৭০-৭৫ টাকা, পটল কেজি ৭০ টাকা ও কচুর লতি ৬০-৬৫ টাকা।

ক্রেতা আবদুল আজিজ জানান, কিছুদিন পূর্বে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৬০-৭০ টাকায়। এখন বিক্রি হচ্ছে ২শ টাকায়। দাম বৃদ্ধির কারণে ২৫০ গ্রামের অধিক কাঁচা মরিচ কেনা সম্ভব হচ্ছে না।

এলাকার সচেতন মহল জানান, লোহাগাড়া বটতলী ষ্টেশনসহ এলাকার প্রায় হাটবাজারের কাঁচা বাজার মধ্যস্বত্বভোগীরা নিয়ন্ত্রণ করছেন। ফলে ভারী বর্ষণ বা বন্যার চেয়ে মধ্যস্বত্বভোগীদের প্রভাব বেশী পড়েছে কাঁচা বাজারে। যাতে কাঁচা বাজার কেনাকেটায় নিুআয়ের লোকজন বিপাকে পড়তে হচ্ছে। পাশাপাশি রসুন ও আদার দামও আকাশ ছোঁয়া। আদা ও রসুন ১৫০ টাকার অধিক মূল্যে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি। পিয়াজের দামও বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি টানা বৃষ্টি ও বন্যার কারণে চাহিদা মতো পণ্য বাজারে না আসায় সবজির দাম বেড়েছে।

অপরদিকে, মুরগি বিক্রি হচ্ছে ফার্মের লাল রংয়ের সোনারী মোরগ কেজি ২৫০ টাকা, একই দামে বিক্রি হচ্ছে লাল লেয়ার মুরগি। তবে সাদা ব্রয়লার মুরগি প্রতি কেজি ১১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গৃহপালিত মুরগির দাম ৬শ টাকা কেজি। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে কেজি ৬শ টাকায়। মাছ বাজারেও আগুন। নিু পর্যায়ে লইট্যা মাছও বিক্রি হচ্ছে কেজি ২শ টাকার অধিক দামে। যা এক সপ্তাহ আগে বিক্রি হয়েছে ১০০-১২০ টাকায়। অধিক মূল্যে সাগরের মাছ বিক্রি হচ্ছে। তাও কোল্ডষ্টোরে সংরক্ষিত মাছ।

বাজারে পণ্যের দাম ও মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ কামনা করেছেন ক্রেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!