Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | বান্দরবানে সিক্স মার্ডার মামলায় গ্রেফতার ২, খোঁজ মেলেনি অপহৃত দুইজনের

বান্দরবানে সিক্স মার্ডার মামলায় গ্রেফতার ২, খোঁজ মেলেনি অপহৃত দুইজনের

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : সিক্স মার্ডার হত্যা মামলায় বান্দরবানে এজাহারভুক্ত আসামী সহ ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে তবে আওয়ামী লীগ কর্মী সহ অপহৃত দুই যুবকের খোঁজ মেলেনি দেড় সপ্তাহেও।

সিক্স মার্ডারের সঙ্গে জড়িতরাই নিখোঁজ দুই যুবককে অপহরণ করেছিল বলে দাবি গ্রামবাসীদের।

আজ সোমবারও (১৩ জুলাই) হত্যার রহস্য উন্মোচন এবং হত্যকারীদের গ্রেফতার ও অপহৃতদের উদ্ধারে সম্ভাব্য স্থানগুলোতে অভিযান চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো।

সিক্স মার্ডার হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত দু’জন হচ্ছে কুহালং ইউনিয়নের উজিপাড়ার বাসিন্দা এজাহারভুক্ত দুই নম্বর আসামী অংপ্রু মারমা (৪০)। অপরজন সুশান্ত চাকমা (৩২) অজ্ঞাতনামা আসামীদের মধ্যে একজন।

অপরদিকে সিক্স মার্ডারের ক’দিন আগে গত ৫ জুলাই কুহালং ইউনিয়নের রাবার বাগান এলাকা থেকে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে অপহৃত যুবক গুংগা জলি ত্রিপুরা (৪১) এবং সদর ইউনিয়নের হেব্রন পাড়া থেকে একইভাবে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে গত ২ জুলাই অপহৃত আওয়ামী লীগের কর্মী লুলথাং বম (৩০)-এর কারো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়দের অভিযোগ, অপহরণকারী সন্ত্রাসীরাই সিক্স মার্ডার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। অপহৃত দুই যুবককেও অপহরণের পর হত্যা করে লাশ গুম করেছে সন্ত্রাসীরা। ইতিপূর্বে অপহরণ ঘটনাগুলোর বর্ণনা থেকে তাই মনে হচ্ছে।

অপহৃত গুংগা জলি ত্রিপুরার বড় ভাই জগদীশ ত্রিপুরা বলেন, “ছোট ভাই আমার বাসায় বাগানের আম দিয়ে বাড়ি ফেরার পথেই অপহৃত হয়েছে। কারা, কেন আমার ভাইকে অপহরণ করেছে বুঝতে পারছি না। আমার ভাই কোনো রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল না। ছোট ভাইয়ের নিখোঁজের খবরে পরিবারের সবাই আতঙ্কে রয়েছে। কারোর চোখে ঘুম নেই, খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দিয়েছে বাবা-মা। ভাইকে খুঁজে পেতে থানায় ডায়েরিও করেছি।”

সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, সিক্স মার্ডার হত্যা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামী সহ গ্রেফতারকৃত ২ জনকে আদালতের নির্দেশে জেলে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারে মাঠে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অপহৃত দুই যুবকের খোঁজ মেলেনি। তবে অপহৃতদের উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সম্ভাব্য স্থানগুলোতে চালানো হচ্ছে তল্লাশিও।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জুলাই সকালে বান্দরবান সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের বাঘমারা বাজার পাড়া এলাকায় ব্রাশফায়ারে জেএসএস এমএন লারমা (সংস্কার) গ্রুপের শীর্ষ নেতা সহ ৬ জনের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি বিমল কান্তি চাকমা(৬৮), কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা চিংথোয়াইয়াং মারমা ডেবিট(৫৬), বান্দরবান জেলা সভাপতি রতন তঞ্চঙ্গা(৫০), যুব সমিতির সদস্য রবিন্দ্র চাকমা মিলন(৫০), রিপন ত্রিপুরা জয়(৩৫) ও জ্ঞান ত্রিপুরা দিপেন(৩২)। গুলিবিদ্ধ হয় সংগঠনের সদস্য খাগড়াছড়ির বাসিন্দার নিরু চাকমা(৪২), বিদ্যুৎ ত্রিপুরা(৩৩) দুজন এবং বাঘমারার বাসিন্দা একজন কলেজ ছাত্রীও। -আজাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!