Home | ব্রেকিং নিউজ | দলিল জালিয়াতি : তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত মালিকের পক্ষে রায় এসিল্যান্ডের

দলিল জালিয়াতি : তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত মালিকের পক্ষে রায় এসিল্যান্ডের

image_printপ্রিন্ট করুন

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ায় দলিল জালিয়াতি করে দীর্ঘদিন যাবত অন্যের জমি ভোগ করার অভিযোগ উঠেছে মুহাম্মদ হোসেন নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তিনি উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের গোলাম নবী হাজির পাড়া এলাকার মৃত তজু মিয়ার পুত্র। ভূক্তভোগী মুহাম্মদ নজির আহমদ একই ইউনিয়নের আমিরাবাদ কিল্লার আন্দর এলাকার মৃত আবদুল হাকিমের পুত্র।

জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত মোহাম্মদ হোসেন একটি জায়গার দলিল জালিয়াতি করে নামজারি করে নেয়। পরে উক্ত দলিলের বিরুদ্ধে আপত্তি জানান ভূক্তভোগী মুহাম্মদ নজির আহমদ গং। বিষয়টি উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. খোরশেদ আলম চৌধুরী তদন্ত করেন। এতে দলিলটি জালিয়তি প্রমাণ হলে ২০২১ সনের ২৫ আগষ্ট প্রকৃত মালিকের পক্ষে রায় দেন।

ভুক্তভোগী মুহাম্মদ নজির আহমদ জানান, আমার জায়গার দলিল জালিয়াতি পূর্বক প্রতারণা করে নামজারী করেছিল মুহাম্মদ হোসেন। আমি সেটার বিরুদ্ধে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে অভিযোগ দায়ের করি। এসিল্যান্ড তদন্তপূর্বক জায়গার প্রকৃত মালিকের পক্ষে রায় দেন। এজন্য এসিল্যান্ডের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রদান করেন তিনি। এছাড়া এলাকায় মুহাম্মদ হোসেনের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে।

অভিযুক্ত মুহাম্মদ হোসেন জানান, উপজেলার জনৈক এক ব্যক্তিকে নামজারী করতে দিয়েছিলাম। সে আমাকে একটি দলিল তৈরী করে দেন। সেটা অনেক দিন আগে। তবে, আমি কোন ধরণের দলিল জালিয়াতি করি নাই। এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়ষন্ত্র। দলিল জালিয়াতি ব্যাপারে আমি জড়িত নয় বলেও তিনি জানান।

লোহাগাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. খোরশেদ আলম চৌধুরী জানান, মুহাম্মদ হোসেন নামে এক ব্যক্তি দলিল জালিয়াতি করে হয়রানীর চেষ্টা করে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে জায়গার প্রকৃত মালিক নজির আহমদের পক্ষে রায় দেয়া হয়েছে। কেউ দলিল জালিয়াতি করে হয়রানি করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!