Home | সাহিত্য পাতা | ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন সুমি’র ২টি কবিতা

ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন সুমি’র ২টি কবিতা

image_printপ্রিন্ট করুন

609

পিপাসার্ত থেকে যাবো

জীবনকে বয়ে যেতে দাও
দু ‘কূল ছাপানো নদীর মত
বইতে দাও পাহাড়ি ঝর্ণার মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে যাবো!

জীবনকে গলে যেতে দাও
সলতে ঘিরে থাকা মোমের মত
গলতে দাও উষ্ণতায় হিমবাহের মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে যাবো!

জীবনকে চঞ্চল হতে দাও
ফুলে ফুলে ওড়া প্রজাপতির মত
চঞ্চল হতে দাও দোয়েলের পুচ্ছনাচনের মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে যাবো!

জীবনকে দীর্ঘ হতে দাও
শেষ বিকেলের ছায়ার মত
দীর্ঘ হতে দাও শীতের রাত্রির মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে যাবো!

জীবনকে ভারি হতে দাও
বিগলিত পারদ – ধাতুর মত
ভারি হতে দাও প্রস্তরীভূত শিলার মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে যাবো!

জীবনকে কঠিন হতে দাও
কাঁচ -কাটা হীরকের মত
কঠিন হতে দাও যাপিত জীবনের ইচ্ছেগুলোর মত
আমি না হয় পিপাসার্তই থেকে গেলাম!

—————————————–
অসুখী গল্পপাঠ

ঢেউ জানে সব বিষণ্ণ কাহিনীগুলো
কলকল্লোলে অসুখী গল্পপাঠ।
মাথা উঁচিয়ে তীর অবলোকনে
সাদা সাদা ফেনিল উচ্ছাস
নত মস্তকে ছোঁয় তটরেখা।
স্পর্শে উজ্জ্বল আলোক আভা
আশ্চর্য একটুকরো মেঘ হয়ে যায়
আদি-অন্তহীন ঘূর্ণাবর্তে ভাবের স্ফুরণ।
দিক- দিগন্ত ভরা অকল্পনীয় নৈঃশব্দ্য
নিঃসঙ্গ প্রদীপের ম্লান শিখা হয়ে জ্বলে
নিবাত -নিষ্কম্প রাতের নিশ্ছিদ্র কৃষ্ণরঙে
জীবনের আলো -হাওয়ার নিষ্করুণ অবসান।
জোয়ার আসে তার সমস্ত বিভীষিকা নিয়ে
জলের আলুথালু নৃত্যে ব্যাকুল নিঃশ্বাস
বিলীয়মান তটে কুয়াশা হয়ে যায়!
তামাটে- লাল চাঁদের স্তনে মুখ ডুবিয়ে
পৌঁছে যেতে চাই সৃষ্টির কেন্দ্রবিন্দুতে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!