ব্রেকিং নিউজ
Home | সাহিত্য পাতা | শুভ মহালয়া

শুভ মহালয়া

522

শুভ্রা নীলাঞ্জন : ত্রেতাযুগে ভগবান শ্রীরামচন্দ্র অকালে দেবীকে আরাধনা করেছিলেন লংকা জয় করে সীতাকে উদ্ধারের জন্য। আসল দূর্গা পূজা হলো বসন্তে। পুরাণ মতে রাজা সুরথ প্রথম দেবী দুর্গার আরাধনা শুরু করেন।

বসন্তে তিনি এই পুজার আয়োজন করায় দেবীর এই পুজাকে বাসন্তি পুজাও বলা হয়।শ্রী রামচন্দ্র অকালে অসময়ে পুজা করেছিলেন বলে এই শরতের পুজাকে অকালবোধন বলা হয়।

সনাতন ধর্মে কোন শুভ কাজ করতে গেলে, বিবাহ করতে গেলে, তাদের প্রয়াত পূর্বপুরুষ ও প্রয়াত পিতামাতার জন্য সাথে সমগ্র জীবজগতের জন্য তর্পন করতে হয়। তর্পন মানে খুশী করা।

ভগবান শ্রী রাম লংকা বিজয়ের আগে এদিনে এমনই করেছিলেন। সেই অনুসারে এই মহালয়া তিথি তে যারা পিতৃ মাতৃ হীন তারা তাদের পুর্বপুরুষদের স্মরন করে পূর্বপুরুষদের আত্মার শান্তি কামনা করে অঞ্জলি প্রদান করেন।

সনাতন ধর্ম অনুসারে এই দিনে প্রয়াত আত্মাদের মর্ত্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।প্রয়াত আত্মার যে সমাবেশ হয় তাহাকে মহালয়া বলা হয়। মহালয় থেকে মহালয়া। পিতৃপক্ষের ও শেষ দিন এটি।

মহালয়াতে যারা গংগায় অঞ্জলি প্রদান করেন পুর্বপুরুষদের আত্মার শান্তির জন্য , তাহারা শুধু পুর্বপুরুষদের নয় পৃথিবীর সমগ্র কিছুর জন্য প্রার্থনা ও অঞ্জলি প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*