Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | চলতি মাসে বাসা ভাড়া নেয় বসিলার জঙ্গি

চলতি মাসে বাসা ভাড়া নেয় বসিলার জঙ্গি

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলা ব্রিজের পাশে একটি হাউজিং সোসাইটি। মূল সড়ক থেকে দুই মিনিটের হাঁটা পথ দূরত্বে একটা চারতলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় বাসা ভাড়া নেয় জঙ্গিরা।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভোর থেকে ওই বাড়িটিতে অভিযান চালিয়ে শীর্ষস্থানীয় নেতা এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টারকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এরপর সকাল থেকে র‌্যাবের ডগ স্কোয়াড ও বম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট অভিযান চালায়।

ওই বাড়িটির মালিক শাহজাহান থাকেন মোহাম্মদপুর এলাকাতেই। আর বাড়িটি দেখাশোনা করতেন দারোয়ান মহিউদ্দীন। বাড়ি ভাড়া দেওয়া, ভাড়া উঠানোর যাবতীয় কাজ করতেন তিনিই।

অভিযান শেষে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, আটক উজ্জ্বল মাস্টার চলতি মাসের ২ তারিখে ভবনটির দোতালায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নেন। বাসা ভাড়া নেওয়ার সময় প্রিন্টিং প্রেসে কাজ করেন বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

বাসা ভাড়ার সময় ৫ হাজার টাকা অগ্রিম টাকা দেওয়া হয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে পরিবারের লোকজন এলে জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে এমন শর্তে বাসাটি ভাড়া নেন তিনি। বাসাটিতে আরও দুই জন লোকের আসা যাওয়া ছিল, তারা মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) বাসা থেকে বের হয়ে যায়।

বাড়িটির দারোয়ান মহিউদ্দীন বলেন, ওই ব্যক্তি সকাল সাতটার সময় নাস্তা করে বাসা থেকে বের হয়ে যেতেন। সারাদিন বাসায় আসতেন না, বাসায় ফিরতে ফিরতে রাত ১২টা বাজতো। তিনি ছাড়াও তার সঙ্গে আরও দু’জন ছিলেন, তারা মাঝে-মধ্যে বাসায় আসতেন। ওই দুজনের নাম-পরিচয় জানি না, তবে দেখলে চিনবো। ওই দু’জন সর্বশেষ ৮ সেপ্টেম্বর বাসায় এসে বের হয়ে আর ফেরেননি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাসা ভাড়া নেওয়ার সময় জাতীয় পরিচয় পত্র কাছে না থাকায়, বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) দিতে চেয়েছিল। অগ্রীম পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে তিনি বাসা ভাড়া নেন। তার স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে আসার কথা থাকলেও পরে আর নিয়ে আসেননি।

যাকে আটক করা হয়েছে তিনি প্রিন্টিং প্রেসের মালিক দাবি করতেন। আর যে দু’জন আসা-যাওয়া করতেন তাদের প্রেসের কর্মচারী বলে পরিচয় দিতেন। তিনি কখনো প্যান্ট শার্ট আবার কখনো পায়জামা-পাঞ্জাবি পরতেন। মাঝে-মধ্যে তিনি পানির বোতল, আর খাবার-দাবার নিয়ে বাসায় আসতেন। এছাড়া অন্য কোনো কিছু আনা-নেওয়া করতে দেখেননি দারোয়ান মহিউদ্দীন।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ময়মনসিংহ থেকে গ্রেফতার জেএমবি চার সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বসিলায় জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়া যায়। গ্রেফতার জঙ্গিরা জিজ্ঞাসাবাদে বসিলার জঙ্গির বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য দেয় র‌্যাবকে।

তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব ঢাকার বাইরে জামালপুর ও রাজশাহীসহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মধ্য রাত থেকে বসিলা জঙ্গি আস্তানাটিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে বর্তমান সময়ের জেএমবির এক শীর্ষ নেতা এমদাদুল হক ওরফে উজ্জ্বল মাস্টারকে আটক করা হয়। অভিযানে পিস্তল, গুলি, নগদ পৌঁনে তিন লাখ টাকা, রাসায়নিক দ্রব্য, দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি বুলেট প্রুফ জ্যাকেট ও বেশ কিছু জিহাদি বই জব্দ করা হয়।

আস্তানা থেকে আটক জঙ্গি সদস্যকে র‌্যাব সদর দপ্তরে নেওয়া হয়েছে। সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানান কমান্ডার খন্দকার আল মঈন। বাংলানিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!