Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | রাত ১২টা থেকেই সব ধরনের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ

রাত ১২টা থেকেই সব ধরনের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ

image_printপ্রিন্ট করুন

sadat20161220183733

নিউজ ডেক্স : নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর)।

তফসিল ঘোষণার পর থেকেই নির্বাচনী উৎসব বিরাজ করছে রাজধানীর অদূরে এ বন্দর নগরীতে। তবে আইন অনুযায়ী আজ মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকেই সব ধরনের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

বহুল কাঙ্ক্ষিত এ নাসিক নির্বাচন ঘিরে প্রচার-প্রচারণায় মুখর ছিল নগরী। আর মাত্র একদিন পরই শেষ হচ্ছে সেই অপেক্ষার পালা। নারায়ণগঞ্জবাসী পেয়ে যাবেন নতুন মেয়াদের জন্য তাদের মেয়র।

এদিকে ভোটগ্রহণের সময় ঘনিয়ে আসায় নির্বাচনী কেন্দ্রগুলোতে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সিটি কর্পোরেশন এলাকার বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকায় মঙ্গলবার দুই দলের স্থানীয় নেতাকর্মী ছাড়া কেন্দ্রীয় কোনো নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি।

নাসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা নুরুজ্জামান তালুকদার বলেন, ‘আজ (২০ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার) মধ্যরাত ১২টার পর থেকে সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা, মাইকিং ও গণসংযোগ নিষিদ্ধ। যদি কোনো প্রার্থী বা তার সমর্থক প্রচারণায় অংশ নেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

নিরাপত্তা বিষয়ে পুলিশ সুপার মঈনুল হক বলেছেন, নির্বাচন সামনে রেখে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা, অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে বিশেষ অভিযান চলছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ডের ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে ২০১ জন প্রার্থীর মধ্যে একজন মেয়র, ২৭ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৯ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলরকে বেছে নেবেন।

এদিকে শেষ দিনের প্রচারণায় আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, আজ প্রচারণায় শেষ দিন, আজ আর কারও অভিযোগ শুনবো না। কারও বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করবো না। আমি চাই নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হোক।

অন্যদিকে নাসিক নির্বাচনের শেষ দিনের প্রচারণায় নির্বাচনী এলাকা চষে বেরিয়েছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। মঙ্গলবার সকাল থেকে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। প্রচারণায় অংশ নিয়ে সাখাওয়াত বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিপুল ভোটে জয়ী হবো। এজন্য নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের নিরপেক্ষ হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

উল্লেখ্য, ১৮৭৬ সালে নারায়ণগঞ্জ শহরের সার্বিক উন্নয়নে এবং ব্যবস্থাপনা করার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভা, সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভা ও কদমরসুল পৌরসভা মিলে ২৭টি ওয়ার্ড সমন্বয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। এটি বাংলাদেশের সপ্তম সিটি কর্পোরেশন। যার আয়তন ৭২ দশমিক ৪৩ বর্গকিলোমিটার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!