Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | বিভিন্ন সংগঠনের ঢালাও মন্তব্যের সঙ্গে আমরা একমত নই : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

বিভিন্ন সংগঠনের ঢালাও মন্তব্যের সঙ্গে আমরা একমত নই : তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : দেশে বিভিন্ন সংগঠনের ঢালাও মন্তব্য ঠিক নয়, আমরা এর সঙ্গে একমত নই বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (৩ মে) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে কবি ও সাংবাদিক মিজান মালিকের ‘মন খারাপের পোস্টার’ কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা জানান। বাংলানিউজ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আওতায় গ্রেফতার বিষয়ে দেশি-বিদেশি বেসরকারি সংগঠনের বিরূপ মন্তব্যের জবাবে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন, দেশের ও বিভিন্ন দেশের গণমাধ্যম নিয়ে যে সমস্ত সংগঠন বিবৃতি দেয় তাদের সঙ্গে একমত হবার কারণ নেই। তারা নির্দিষ্ট কিছু জায়গা থেকে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে। আমাদের কাছে বা তথ্য কমিশনের কাছেও কোনো তথ্য চায় না। তাদের ঢালাও মন্তব্য ঠিক নয়, আমরা এর সঙ্গে একমত নই।

ড. হাছান বলেন, পৃথিবীতে আগে ডিজিটাল বিষয়টা ছিল না অর্থাৎ ডিজিটাল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমও যখন ছিল না তখন সেখানে নিরাপত্তার জন্য কোনো আইনেরও প্রয়োজন ছিল না। যখন সেটি এসেছে তখন আইনেরও অবশ্যই প্রয়োজন আছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডিজিটাল সিকিউরিটির জন্য সাইবার সিকিউরিটি ২০১৫, ইউরোপীয় ইউনিয়ন একটি সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্ট ২০১৯ ফ্রেমওয়ার্ক ল’ করেছে। যেটির অধীনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মেম্বার স্টেটরা প্রত্যেকে আবার নিজেরা আইন করেছে। অস্ট্রেলিয়া সাইবার ক্রিমিনাল অ্যাক্ট ২০০১, সিঙ্গাপুর সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্ট ২০১৮ করা হয়েছে। পাশাপাশি আমাদের পার্শ্ববর্তী ভারত, পাকিস্তান, নেপাল সব দেশেই ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য আইন করা হয়েছে বলে জানান ড. হাছান।

মন্ত্রী বলেন, মনে রাখতে হবে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট সারাদেশে সব মানুষের ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য। একজন সাংবাদিক, লেখক, কৃষক, গৃহিণী, সাধারণ মানুষ, রিকশাওয়ালা, চাকরিজীবী, শ্রমিক, রাজনৈতিককর্মী সবারই ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য এ আইন। অনেক সাংবাদিক এ আইনের আশ্রয় নিয়ে মামলা করেছেন। সেসঙ্গে এ আইনের অপপ্রয়োগ যেন না হয়, কোনো সাংবাদিক যেন হয়রানির স্বীকার না হন, সেটির সঙ্গে আমি অবশ্যই একমত।

এর আগে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী কবি ও সাংবাদিক মিজান মালিকের ‘মন খারাপের পোস্টার’ কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনকালে বলেন, মানুষ যখন প্রচণ্ড আত্মকেন্দ্রিক হচ্ছে, কল্পনা হারিয়ে যাচ্ছে, সে সময় কবিতা ও কবিতার বই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মিজান মালিক এখনো তরুণ, তার হাত দিয়ে আরও অনেক কবিতার বই আমাদের সাহিত্য, আমাদের বাংলা ভাষা পাবে এটিই আমার প্রত্যাশা।  

মন্ত্রীর সঙ্গে কবি মিজান মালিক, সাংবাদিক সাঈদ আহমেদ, খায়রুল আলম, আশীষ সেন, আলমগীর স্বপন বইটির মোড়ক উন্মোচনে অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!