Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | ৫৬ ও ৫৭ ধারা মানবাধিকারবিরোধী নয় : তথ্যমন্ত্রী

৫৬ ও ৫৭ ধারা মানবাধিকারবিরোধী নয় : তথ্যমন্ত্রী

hasanul-haque-inu

নিউজ ডেক্স : তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৬ ও ৫৭ ধারা শুধু সাংবাদিকদের জন্য করা হয়নি। এটা সাধারণ দণ্ডবিধি। এই ধারাটি মানুষের নিরাপত্তার জন্য করা হয়েছে। নারীর নিরাপত্তার জন্য, শিশুদের নিরাপত্তার জন্য ধারাটি করা হয়েছে। এটা জামিন অযোগ্য অপরাধ তবে উচ্চ আদালতে গেলে জামিন পাওয়া যায়। এই আইন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক এটা কেউ প্রমাণ করতে পারেনি। এটা মানবাধিকারবিরোধী বলে আমি মনে করি না।

বুধবার জাতীয় সংসদে পীর ফজলুর রহমানের এ সংক্রান্ত সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, কেউ অনলাইনে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটারে চরিত্রহনন করে পোস্ট দিলে এ আইনের আওতায় আসবে। এ আইন নিয়ে ভুল ব্যাখা করা হচ্ছে। এই আইনে নিম্ন আদালতে জামিন হয় না, উচ্চ আদালতে গেলে জামিন পাওয়া যায়। এরকম ৩০-এর অধিকের আইন আছে জামিন অযোগ্য। কিন্তু উচ্চ আদালতে গেলে বিচারকরা মনে করলে জামিন দিতে পারেন।

তিনি বলেন, দেশে ১৮০০’র অধিক অনলাইন পত্রিকা আছে। পত্রিকা, টেলিভিশন, সাপ্তাহিক, পাক্ষিকসহ দেশে কতগুলো গণমাধ্যম রয়েছে। প্রতিটি গণমাধ্যমে যদি ১০ জন করে সাংবাদিকও কাজ করেন তাহলে কত হাজার সাংবাদিক কাজ করছে তা অনুমেয়। এর মধ্যে খুবই নগণ্য, দুই একজন ৫৭ ধারায় গ্রেফতার হয়েছেন। তাছাড়া ৫৭ ধারার মামলার প্রতিটি বিষয় আমরা দেখছি।

তিনি আরও বলেন,  ৫৭ ধারা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কেউ প্রমাণ করতে পারেনি। তারপরেও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক নতুন একটি আইনের খসড়া করা হয়েছে। আমাদের আইনমন্ত্রী দেখবেন ৫৭ ধারা বহাল রাখার দরকার আছে কি না।

-জাগো নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*