Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় জাতীয়করণ স্থগিতাদেশ চেয়ে আপীল খারিজ

সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় জাতীয়করণ স্থগিতাদেশ চেয়ে আপীল খারিজ

image_printপ্রিন্ট করুন

satkania

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় জাতীয়করণের বিরুদ্ধে সাতকানিয়া মডেল হাই স্কুলের করা রিট পিটিশন খারিজ করে দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট। গত বৃহস্পতিবার সকালে সুপ্রিমকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির আব্দুল ওয়াহাব মিয়ার নেতৃত্বাধীণ ৫জন বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত পূর্ণাঙ্গ ব্যাঞ্চ রিট আবেদনটি খারিজ করে দেন। সংশিষ্ট সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্রে প্রকাশ, গত ২৫ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে ১৪৮টি স্কুল জাতীয়করণের সম্মতি দেন। এর মধ্যে সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ও একটি। ঘোষনার পর শিক্ষা মন্ত্রণালয় ২৮ সেপ্টেম্বর জাতীয়করণের বিভিন্ন প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশনা দিয়ে একটি পরিপত্র জারী করেন। পরবর্তীতে সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের বিরুদ্ধে এবং প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি ও মন্ত্রণালয়ের জারীকৃত পরিপত্রকে অবৈধ এবং তা বাতিল চেয়ে গত ১৬ অক্টোবর সাতকানিয়া মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম ও সহকারী শিক্ষক (শরীরচর্চা) শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে হাইকোর্টে রিট পিটিশিন দায়ের করেন। শুনানী শেষে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ ব্যাঞ্চ গত ১৭ অক্টোবর রুলনিশি জারি করেন। এ রুলে বিবাদীদের ৪ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দেওয়ার জন্য বলা হয়। এরি মধ্যে বিবাদী পক্ষ সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ডা. আ.ম.ম মিনহাজুর রহমান হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট ব্যাঞ্চে গত ১২ নভেম্বর হাজির হয় এবং ২১ নভেম্বর রুলের জবাব দেন। এরি মধ্যে গত বুধবার ২৯ নভেম্বর বাদী পক্ষ হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল মামলা রুজু করেন।

গত বৃহস্পতিবার সকালে সুপ্রিম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহাব মিয়া, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হাসান, বিচারপতি মো. ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসাইন হায়দারের সমন্বয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ ব্যাঞ্চ উভয় পক্ষের শুনানী শেষে বাদী পক্ষের দায়েরকৃত আপিল মামলাটি খারিজ করে দেন। মামলার বিবাদী ও সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ডা. আ.ম.ম মিনহাজুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতদাঞ্চলে নারী শিক্ষার প্রসারের কথা চিন্তা করে সাতকানিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেন। অথচ এমপিও ভূক্ত শিক্ষক হয়েও প্রধানমন্ত্রীর এরকম একটি জনসম্পৃক্ত সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে মামলা রুজু করা চরম ধৃষ্টটা ছাড়া আর কিছু নয়। আমি মনে করি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এ ব্যাপারে বিবাদী পক্ষের আইনজীবি ব্যারিষ্টার মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম বলেন, গত কিছুদিন আগে সাতকানিয়া বালিকা বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের প্রক্রিয়াটি স্থগিত করার জন্য সাতকানিয়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ২জন শিক্ষক হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। হাইকোর্ট স্থগিত আদেশ না দিয়ে রুলনীশি জারি করেন। বাদী পক্ষ আবারও স্থগিত আদেশ পাওয়ার জন্য গত বুধবার হাইকোর্টের দেয়া আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টে একটি আপিল মামলা দায়ের করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের একটি পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ শুনানী শেষে তাদের আবেদনটি খারিজ করে দেন। -সিটিজি টাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!