ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়ায় কৃষকের চোখে সোনালী স্বপ্ন

লোহাগাড়ায় কৃষকের চোখে সোনালী স্বপ্ন

214

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ার কৃষকরা চোখে সোনালী স্বপ্ন দেখছেন। উপজেলার প্রায়সব ইউনিয়নে কাঁচা বোরো ফসল ধুলছে বাতাসে। চাষীদের মনেও দোলা দিচ্ছে অনাবিল আনন্দ। মাঠের ধানকেই ঘিরে স্বপ্নের জাল বুনছে কৃষকরা । তবে আশংকাও কম নয়। প্রাকৃতিক দূর্যোগে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হতে হচ্ছে কিনা।

লোহাগাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শামীম হোসেন জানান, এলাকায় বোরো ফসলের ফলন খুবই ভালো। প্রাকৃতিক দূর্যোগের হাত থেকে রক্ষা পেলে এলাকার কৃষকরা ভালো ফলন পাবে। মিটবে তাদের মনের আশা।

কৃষি কর্মকর্তা আরো জানান, লোহাগাড়ায় চলতি মৌসুমে বোরো ফসল হয়েছে ৯ হাজারের অধিক একর জমিতে। চাষাবাদ হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় সাড়ে ৭শত একর জমিতে। কারণ ধানের মূল্য বৃদ্ধি। মূল্য বৃদ্ধির কারণে চাষীদের মধ্যে আশা জেগেছে। এবার সবচেয়ে বেশী বোরো চাষ হয়েছে উপজেলার চুনতি ইউনিয়নে। এখানে ১ হাজার ৭৩০ একর জমিতে বোরো চাষ হয়েছে। এরপর পুটিবিলা ইউনিয়নে হয়েছে ১ হাজার ৫৬০ একরে। কলাউজানে ১ হাজার ১৮৫ একর। আধুনগর ১ হাজার ১১০ একর। চরম্বায় ৯৬৩ একর। বড়হাতিয়ায় ১ হাজার ১০ একর। পদুয়ায় ৮৬৫ একর। আমিরাবাদে ৪২২ একর। লোহাগাড়া সদরে এবার বোরো চাষ হয়েছে ১৯৬ একরে।

উপজেলায় বোরো চাষের জলসেচনের জন্য ৩টি রাবার ড্যাম প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে টংকাবতী নদীতে ১টি, হাঙ্গর ও চাম্বী খালে ১টি করে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ধানের থোর এখনো পরিস্কার হয়নি। ধানা বের হয়েছে আবাদী ফসলের ১০ ভাগে। থোর রয়েছে ২০ ভাগ জমিতে এবং ফুলে ৭০ ভাগ। কৃষকদের অভিমত চলতি মৌসুমে যথাসময়ে চারা রোপন, নিবিড় পরিচর্যা, যথারীতি বিদ্যুৎ সরবরাহ, সেচ ও সার প্রয়োগ যথাযথভাবে সম্পন্ন সম্ভব হয়েছে। তাছাড়াও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক তদারকীও ছিল।

লোহাগাড়া সদরের দফাদার পাড়ার চাষী আলমগীর মুন্সি জানিয়েছেন, তিনি ৬ একর জমিতে বোরো চাষ করেছেন। জলসেচনের ব্যবস্থা ছিল চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোহাগাড়া জোনাল অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাসহ সংলগ্ন অন্যান্যদের বাসার লোকজনের ব্যবহৃত জল। পাশাপাশি একটি পুকুর থেকেও প্রয়োজনে জলসেচন করা হয়েছে। ফলে তাকে জলসেচনের জন্য দূর্ভোগ পোহাতে হয়নি। ৬ একর জমিতে চাষ করতে চারা রোপন, পরিচর্যা, সার ও কীটনাশক প্রয়োগসহ সবমিলে তার খরচ রয়েছে প্রায় লাখ টাকা। বোরো ফসলের ভালো ফলন দেখে ভরে গেছে তার মন। সে প্রায়দিন বোরো ফসলের সবুজ ঢেউ দেখতে যান জমিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*