ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীর বিক্রম’র জীবনী

মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীর বিক্রম’র জীবনী

187

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ার উপজেলার চুনতি ইউনিয়নের মধ্য চুনতি সিকদার পাড়ায় ১৯৬০ সালের ১ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, বিবি, ওএসপি, পিএসসি বীর বিক্রম জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম মোঃ ইসহাক মিয়া ও মাতা মরহুমা মেহেরুন্নেছা।

লোহাগাড়ার চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসায় তিনি দাখিল পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। ১৯৭০ সালে তিনি ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি হন। এ প্রতিষ্ঠান থেকে তিনি ১৯৭৫ সালে এসএসসি ও ১৯৭৭ সালে এইচএসসি কৃতিত্বের সাথে পাস করেন।

১৯৭৮ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। ২ বছর পর বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমীতে প্রশিক্ষণ শেষে ১৯৭৯ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন প্রাপ্ত হন। সেনাবাহিনীতে তিনি মেধাবী, সাহসী ও নিষ্ঠাবান একজন অফিসার হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৯৫-৯৬ সালে গোলযোগপূর্ণ পার্বত্য চট্টগ্রামের দায়িত্ব পালনকালে তিনি বুদ্ধিমত্তা ও বহুমুখী প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন। তাঁর বিচক্ষণতায় সেখানে অনেক জটিল ও কঠিন সমস্যা শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান হয়েছে। এসব বীরত্বপূর্ণ সাহসিক কর্মকান্ডের জন্য তিনি ‘বীর বিক্রম’ খেতাবে ভূষিত হন।

জাতিসংঘ শান্তি মিশনের দায়িত্বে থাকাকালীন সময়ে তিনি একজন বিচক্ষণ সেনা কর্মকর্তা হিসেবে প্রশংসিত হয়েছেন। জাতিসংঘ শান্তি মিশন থেকে দেশে ফিরে আসার পর তাঁকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদে পদোন্নতি দেয়া হয়। একজন বিচক্ষণ, মেধাবী ও বিশ্বস্ত সেনা কর্মকর্তা হিসেবে তিনি সরকারের আস্থা অর্জন করেন। ফলে ২০০৯ সালের জানুয়ারী মাসে তাঁকে এসএসএফ’র মহা-পরিচালক পদে নিযুক্ত করা হয়। ওই সালের ফেব্রুয়ারী মাসে তাঁকে মেজর জেনারেল পদে পদোন্নডিত দেয়া হয়। পরবর্তীতে তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামরিক সচিব নিযুক্ত হন।

তিনি এলাকায় তাঁর মা’র স্মরণে চুনতি মেহেরুন্নেছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পিতা’র স্মরণে চুনতি হতে পুটিবিলা পর্যন্ত সাড়ে ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ ইছহাক মিয়া সড়ক ও চুনতি পানত্রিশা এলাকায় বীরবিক্রম জয়নুল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়া চুনতিসহ লোহাগাড়ার উন্নয়নে অনেক অবদান রেখেছেন।

গত ৯ ডিসেম্বর চুতর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের চাকরির মেয়াদ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখ থেকে ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনও জারি করেছিল।

biman-ad

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টা ১৩ মিনিটে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!