ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | বাংলাদেশের অধিকার আদায়ে আওয়ামীলীগ সবর্দা সচেষ্ট : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের অধিকার আদায়ে আওয়ামীলীগ সবর্দা সচেষ্ট : প্রধানমন্ত্রী

pmm20170506182302

নিউজ ডেক্স : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই দেশের উন্নয়ন হয়। তাই জনগণ আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়।

শনিবার বিকেলে কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপির একমাত্র লক্ষ্য লুটপাট ও দুর্নীতি। জনগণের কল্যাণে তাদের কোনো মনোযোগ নেই।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অধিকার আদায়ে আওয়ামী লীগ সরকার সবর্দা সচেষ্ট। ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছ থেকে ন্যায্য অধিকার আদায়ে কেবল আমরাই সফল হয়েছি। অথচ ইতোপূর্বে ক্ষমতায় থেকে অধিকারের কথা বলার সাহসই ছিল না জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়ার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংবিধান লঙ্ঘন করে যারা ক্ষমতা দখল করে, তারা জনগণের কথা ভাবে না। তারা ক্ষমতা ভোগ করে আর কিছু এলিটকে লুটপাটের সুযোগ করে দেয়। ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসে ঘোষণা দিয়েছিলাম, আমি শাসক না জনগণের সেবক হিসেবে বাংলাদেশ পরিচালনা করব।

শেখ হাসিনা বলেন, কক্সবাজারে সারাবিশ্ব থেকে পর্যটকরা আসেন। সে বিবেচনা করে আমরা এখানে বিমানের বোয়িং চলাচল শুরু করেছি। এখানকার বিমানবন্দর জরাজীর্ণ ছিল। ১৯৯৬ সালে সরকারে এসে এটিকে উন্নত করে যাই। এই বিমানবন্দরকে উন্নত করার জন্য আরও কিছু উদ্যোগ নিয়েছি। বিমানবন্দরটি যেন আন্তর্জাতিক মানের হয়, সে জন্য রানওয়ে প্রশস্ত করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারবাসী অবহেলিত ছিল আমি জানি। যখনই কোনো দুর্যোগ দেখা দিয়েছে আমরা এসেছি, আপনাদের সেবা করেছি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৯১ সালে ঘূর্ণিঝড়ের সময় বিএনপি ক্ষমতায় ছিল। এত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বিএনপি নেত্রী জানতেন না। আমি সংসদে তোলার পর উনি বলে দিলেন, যত মরার কথা, তত মানুষ মরে নাই। আমি প্রশ্ন করেছিলাম, কত মানুষ মরলে আপনার তত মানুষ হবে? এরপর আমরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে ছুটে এসেছিলোম।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের পরিচালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন, আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাসান মাহমুদ, সাংগঠনিক এনামুল হক শামীম, কক্সবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহামদ, কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, উখিয়া-টেকনাফ আসনের সাংসদ আবদুর রহমান বদি, মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*