Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | নুসরাত হত্যাকাণ্ড : শাহাদাতের পরা বোরকা উদ্ধার

নুসরাত হত্যাকাণ্ড : শাহাদাতের পরা বোরকা উদ্ধার

image-173852-1556976852

নিউজ ডেক্স : মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যায় ব্যবহৃত আরও একটি বোরকা উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। শনিবার দুপুরে মামলার অন্যতম আসামি শাহাদাত হোসেন শামীমের দেখানো তথ্য মতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার পুকুর থেকে এটি উদ্ধার করা হয়।

biman-ad

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পিবিআইয়ের ওসি মো. শাহ আলম জানান, নুসরাত হত্যা মামলার ৩ নম্বর আসামি শাহাদাত হোসেন শামীমকে নিয়ে নিয়ে মাদ্রাসায় অভিযান চালানো হয়। পরে ওই মাদ্রাসার পুকুরে তার দেখানো স্থান থেকে একটি বোরকা উদ্ধার করা হয়। হত্যাকাণ্ডের সময় শামীম এ বোরকাটি ব্যবহার করে বলে পিবিআই জানায়।

এদিকে দুই দিনের রিমান্ড শেষে শনিবার শাহাদাত হোসেন শামীম ও জাবেদ হোসেনকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ধ্রুব জ্যোতি পালের আদালতে তোলা হয়। আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তাদের দুইজনকে ৭ দিনের রিমান্ড চাইলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইন তাদের দুই দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

এ মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাসহ ৯ জন আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। এদের মধ্যে নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, উম্মে সুলতানা পপি, কামরুন নাহার মনি, জাবেদ হোসেন, আবদুর রহিম ওরফে শরীফ, হাফেজ আবদুল কাদের ও জোবায়ের আহমেদ রয়েছেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের দায়ে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাকে আটক করে পুলিশ। পরে ৬ এপ্রিল ওই মাদ্রাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগিরা তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা ৫ দিন হাসপাতালে থাকার পর মারা যায় নুসরাত জাহান রাফি।

এ ঘটনায় তার বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার এজহারভূক্ত ৮ আসামিসহ এখন পর্যন্ত ২১জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও পিবিআই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!