ব্রেকিং নিউজ
Home | শিক্ষাঙ্গন | চরম্বায় অনুষ্ঠিত মেধা যাচাই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ

চরম্বায় অনুষ্ঠিত মেধা যাচাই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ

466

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের দারুল আলকাম একাডেমী (দাখিল মাদ্রাসা)’র প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মেধা যাচাই পরীক্ষার ফলাফল ২৬ আগষ্ট প্রকাশিত হয়েছে। গত ১৬ আগষ্ট ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের নিয়ে এ মেধা যাচাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সহ-সভাপতি মোঃ তারেক উদ্দিন নোমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

১০ম শ্রেণীর ফলাফল : মেধা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ২০ জন শিক্ষার্থী। ১৫ জন পাশ ও  ৫ জন ফেল করেছে। প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে তানিয়া আক্তার (রোল নং- ১), দ্বিতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে মহি উদ্দিন (রোল নং- ৮) ও তৃতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে দস্তগীর আলম (রোল নং- ৪)।

৯ম শ্রেণীর ফলাফল : মেধা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৩০ জন শিক্ষার্থী। ২৪ জন পাশ ও  ৬ জন ফেল করেছে। প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে মোঃ রোকন উদ্দিন (রোল নং- ২), দ্বিতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে মোহাম্মদ রিদওয়ান (রোল নং- ১) ও তৃতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে ফাহমিদা নুছরাত তাজবা (রোল নং- ১২)।

৮ম শ্রেণীর ফলাফল : মেধা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৫০ জন শিক্ষার্থী। ৪৮ জন পাশ ও  ২ জন ফেল করেছে। প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে রুহুল আমিন সায়েম (রোল নং- ১৬), দ্বিতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে আরিফুল ইসলাম (রোল নং- ৯) ও তৃতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে আনিছুর রহমান (রোল নং- ১৭)।

৭ম শ্রেণীর ফলাফল : মেধা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৪০ জন শিক্ষার্থী। ৩৩ জন পাশ ও  ৭ জন ফেল করেছে। প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে মোঃ তাজিম উদ্দিন (রোল নং- ১), দ্বিতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে আফরা মোস্তারী (রোল নং- ৭) ও তৃতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে জাকিয়া সোলতানা জিন্নাত (রোল নং- ২৪)।

৬ষ্ঠ শ্রেণীর ফলাফল : মেধা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ৫১ জন শিক্ষার্থী। ৩৯ জন পাশ ও  ১২ জন ফেল করেছে। প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে সালাহ উদ্দিন (রোল নং- ৫১), দ্বিতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে মোঃ আরফাত হোসেন (রোল নং- ২) ও তৃতীয় স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে আরিফুল ইসলাম (রোল নং- ১)।

জানা যায়, শিক্ষার্থীদের বিশ্বমানের করে তোলা এবং প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষাব্যবস্থার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার লক্ষ্যে বাঙলা, ইংরেজি ও গণিত, আরবির উপর ৫০ নাম্বারের পরীক্ষা নেয়া হয়। প্রতিষ্টান প্রধান মাওলানা আবদুল করিম ও অন্যান্য শিক্ষকরা পরিদর্শক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সদস্যদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন তাওহীদুল ইসলাম, ফারেস উদ্দীন, রুহুল আমিন, ইয়াসিন আরফাত, নূরুল ইসলাম,তারেক উদ্দিন নোমান, দ্বীন মুহাম্মদ সহ অন্যান্যরা।

বিশেষত্ব এই যে, প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার আদলে ভূল উত্তরের জন্য নেগেটিভ মার্ক সিস্টেমে পরীক্ষা নেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*