ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে বাজার ও আবর্জনা

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে বাজার ও আবর্জনা

187

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম–কক্সবাজার মহাসড়কের লোহাগাড়ায় দু’পাশে দিন–রাত অবৈধ বাজার বসছে। মাইলব্যাপী ময়লা–আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। ফলে প্রতিদিন যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছে। পথচারী ও যানবাহন যে কোন মুহূর্তে মারাত্মক দুর্ঘটনার আশংকা প্রকাশ করেছেন। স্থানীয় জনসাধারণ ও ভুক্তভোগীরা অনতিবিলম্বে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেছেন।

সরেজমিন দেখা যায়, লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনের বোয়ালিয়া ব্রিজ, আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সম্মুখস্থল, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবনের প্রবেশমুখ, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে, লোহার দিঘির পাড়, আধুনগর ও পদুয়া তেওয়ারীহাটের সম্মুখস্থলে রাতের আঁধারে ময়লা–আবর্জনা ফেলা হয়। ফলে উৎকট দুর্গন্ধে পথচারী ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগামী শিক্ষার্থীরা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। সূর্য ডুবার প্রাক্কালে কে বা কারা এসব আবর্জনায় আগুন লাগিয়ে দেয়। ফলে নির্গত ছাই ও ধোঁয়ায় পরিবেশ ভারী হয়ে যায়। মানুষের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছে। অপরদিকে, উচ্চতর আদালতের নিষেধ থাকা স্বত্বেও মহাসড়কের দু’পাশে নির্দিষ্ট স্থানে দোকানপাট বসানো হচ্ছে। এসব দোকান থেকে একটি প্রভাবশালী মহলের রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতায় চাঁদা আদায়ের অভিযোগ করা হয়েছে।

186

দোহাজারী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, তারা অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করার ব্যবস্থা নেন ঠিকই। কিন্তু চলে আসার পর পরই পুনরায় দোকানপাট বসে যায়। এসব বন্ধে স্থানীয় থানা পুলিশ, উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় বাজার কমিটি যৌথ উদ্যোগ নিতে পারে। তবে রহস্যজনক কারণে উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। ফলে সমস্যাটি প্রকট আকার ধারণ করছে। সম্প্রতি এক পসলা বৃষ্টিপাত হয়েছে। আরকান সড়কে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় ও ময়লা আবর্জনা রাস্তায় জমে আছে । ফলে যে কোন মুহূর্তে পিচ্ছিল রাস্তায় দুর্ঘটনা ঘটার আশংকা রয়েছে। তারা আরো বলেছেন, জিও ট্যাক্স ব্যবহার না করে লবণ পরিবহণ করা হয়। এতেও রাস্তা–ঘাট পিচ্ছিল হয়ে যায়। অতি সম্প্রতি সাতকানিয়ায় ইটভাটার কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত মাটি রাস্তায় পড়ে পিচ্ছিল হয়ে যায়। ফলে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয় এবং জনসাধারণের দূর্ভোগ চরমে পৌঁছে যায়।

লোহাগাড়ার পদুয়া থেকে চুনতি পর্যন্ত ময়লা–আবর্জনার স্তূপ সরানো ও ফুটপাত দখল করে বাজার বসানো বন্ধ করার ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

রিপোর্ট- মোঃ জামাল উদ্দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*