ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | গ্রীষ্মকালীন সবজির সরবরাহ বাড়ায় দাম কমছে

গ্রীষ্মকালীন সবজির সরবরাহ বাড়ায় দাম কমছে

bg-2320180420111219

নিউজ ডেক্স : বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে গত সপ্তাহে সবজির দাম বেড়ে যায়। এ সপ্তাহে কোনো কোনো সবজির দাম ৪০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। কাঁকরোল কেজিতে ১১০ টাকা থেকে কমে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়। ঝিঙে ৬০ টাকা থেকে কমে বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়।

শুক্রবার (২০ এপ্রিল) নগরীর বিভিন্ন বাজারে দেখা গেছে এ চিত্র।

নতুন করে আসা গ্রীষ্মকালীন সবজির সরবরাহও বেড়েছে বাজারে। গত সপ্তাহে সরবরাহ কম থাকায় পাইকারি বাজারে দাম বেশি ছিল। এর প্রভাব পড়েছিল কাঁচাবাজারে।

চকবাজারে দেখা গেছে, আগের সপ্তাহে প্রতিকেজি তিতকরলা ৫৫ টাকা ছিল। এ সপ্তাহে ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া ৩০ টাকার দামের টমেটো ২০ টাকা, ৫০ টাকার বেগুন ৪০ টাকা, ৫০ টাকার শিম ৪০ টাকা, ৫০ টাকার বেগুন ৪০ টাকা, ৫৫ টাকা দামের পটল ৫০ টাকা।

দেশি লাউ কেজি ৩৫ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০, মুলা ৪০ টাকা ও গাজর ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

চকবাজারের দোকানি নুরু মিয়া বলেন, ‘বৈশাখের শুরুতে সবজির চাহিদা বেশি থাকায় দাম বাড়তি ছিল। এখন সবজির সরবরাহ বাড়ছে। এ ছাড়া স্থানীয় সবজিও প্রচুর আসছে। তাই দাম কমছে।’

এদিকে মাছের বাজারে কয়েকটি ছাড়া দাম স্থিতিশীল রয়েছে। কোরাল মাছ কেজি ৬৫০ টাকা, রুই ৩০০, ইলিশ ৪০০-৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া দেশি কৈ মাছ ৬০০ ও ফার্মের ২৫০ টাকা, চিংড়ি আকার ভেদে ৪৫০-৮০০ টাকা, কাতলা ৩৫০, লইট্টা ১২০ থেকে ১৫০ টাকা, বাটা মাছ ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ৫ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ টাকা, দেশি মুরগি ৩৮০ টাকা থেকে কমে ১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছাগলের মাংস ৭০০ টাকা এবং গরুর মাংসের কেজি ৬০০ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*