Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ায় টংকাবতী নদীর ভাঙ্গন, আতংকে এলাকাবাসী

লোহাগাড়ায় টংকাবতী নদীর ভাঙ্গন, আতংকে এলাকাবাসী

image_printপ্রিন্ট করুন

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া উপজেলার উত্তর আমিরাবাদ তুলাতলী বাজার এলাকায় টংকাবতী নদীর ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে টংকাবতী গিলে খেয়েছে চলাচলের রাস্তা। কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে যে কোন মুহুর্তে বিলীন হয়ে যেতে পারে অনেক বসতরঘর ও দোকানপাট। পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশংকায় নির্ঘুম রাত যাপন করছেন শত শত বসতঘরের লোকজন।

সরেজমিনে দেখা যায়, বেশ কয়েক বছর যাবত তুলাতলী বাজার ঘেষা টংকাবতী নদীর ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে। অব্যাহত ভাঙ্গনে চলাচলের রাস্তা বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙ্গন রোধে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে অতি বৃষ্টিতে পানি বৃদ্ধি পেলে নদী গর্ভে চলে যাবে দোকানপাট ও বসতঘর। রাস্তা বিলীন হয়ে যাওয়ায় ঘোর পথ দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে।

স্থানীয়রা জানান, মহাসড়কের বার আউলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ গেইট থেকে তুলাতলী বাজার হয়ে বারদোনা পর্যন্ত এ সড়ক বিস্তৃত। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন আমিরাবাদ ইউনিয়নের চৌধুরী পাড়া, দয়ার বর পাড়া, শীল পাড়া, বৈরাগী পাড়া, দাশ পাড়া ও সাতকানিয়া উপজেলার বারদোনা এলাকার প্রায় ৭-৮ হাজার লোকজন চলাচল করেন। এছাড়াও উত্তর আমিরাবাদ এমবি উচ্চ বিদ্যালয়, উত্তর আমিরাবাদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও বার আউলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করে। কয়েক বছরের ভাঙ্গনে সড়কের তুলাতলী বাজার এলাকায় ব্যাপক ভাঙ্গন সৃষ্টি হওয়ায় বর্তমানে চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। দিন দিন ভাঙ্গন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ অঞ্চলের কৃষকদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য পরিবহণে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমে নদীর পানি বৃদ্ধি পেলে যে কোন সময় পাড় ভেঙ্গে লোকালয়ে ঢুকে পড়বে। বৃষ্টি হলেই বসতঘর ও জানমালের ক্ষয়ক্ষতির আশংকায় নির্ঘুম রাত যাপন করেন তারা। ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলে অনেক জনপ্রতিনিধি নির্বাচনী বৈতরণী পার করেছেন। কিন্তু নির্বাচনের পরে কেউ খবর নেননি।

স্থানীয় শিক্ষক সুমন মজুমদার জানান, উত্তর আমিরাবাদ চৌধুরী পাড়া সড়কটি খুবই জনগুরুত্বপুর্ণ। টংকাবতী নদীর ভাঙ্গনে এ সড়কটি এখন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। যে কোন সময় টংকাবতীর পানি ঢুকে আশপাশের এলাকা প্লাবিত হতে পারে। বিলীন হয়ে যেতে পারে বসতঘর। তাই টংকাবতীর ভাঙ্গন রোধে দ্রুত স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

আমিরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান এস এম ইউনুছ জানান, তুলাতলী বাজার এলাকায় টংকাবতীর ভাঙ্গন পরিদর্শন করেছি। ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক এতো বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। তবে ভাঙ্গন সংস্কারের জন্য স্থানীয় সাংসদ, উপজেলা প্রকৌশলী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে লিখিতভাবে বিষয়টি অবহিত করেছি। আশা করি দ্রুত এ সমস্যা সমাধান হবে। তিনি আরো জানান, কয়েক বছর পূর্বে ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দ থেকে ভাঙ্গন স্থান সংস্কার করা হয়েছিল। কিন্তু বর্ষায় পানির ¯্রােতে সব তলিয়ে গেছে। ব্লক দিয়ে সংস্কার করা হলে স্থায়ীভাবে ভাঙ্গন রোধ সম্ভব হবে বলে তিনি মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!