Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | মিতু হত্যাকাণ্ড: জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মুছার স্ত্রীর জিডি

মিতু হত্যাকাণ্ড: জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মুছার স্ত্রীর জিডি

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রামের সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম ওরফে মিতু হত্যাকাণ্ডের অন্যতম সন্দেহভাজন কামরুল শিকদার ওরফে মুছার স্ত্রী পান্না আক্তার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে রাঙ্গুনিয়া থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেছেন। আজ মঙ্গলবার (১ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে রাঙ্গুনিয়া থানায় তিনি এই জিডি করেন।

এই বিষয়ে রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুব মিল্কী জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, “২০১৬ সালে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা পান্না আক্তারকে বিভিন্ন মোবাইল ফোন নম্বর থেকে ফোন করে হুমকি দেন। তিনি ওই সময় মোবাইল ফোন নম্বরগুলো সংরক্ষণ করতে পারেননি। গতকাল সোমবার আদালতে সাক্ষ্য দেয়ার কারণে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা তার ক্ষতি করতে পারে সেই আশংকায় তিনি জিডি করেছেন।”

উল্লেখ্য, মুছার স্ত্রী গতকাল সোমবার আদালতে ১৬৪ ধারায় সাক্ষ্য হিসেবে জবানবন্দি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ২০১৬ সালে ওই হত্যাকাণ্ডের পর কিছুদিন পালিয়ে থেকে আত্মসমর্পণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তার স্বামী। তবে যেদিন মুছা আদালতে যাবেন বলে ঠিক করেছিলেন সেদিনই গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে কয়েকজন তাকে ধরে নেয়।

২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরীতে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয় মাহমুদা খানমকে। পাঁচ বছর পর আলোচিত এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়ে এখন কারাগারে আছেন বাবুল আক্তার।

হত্যাকাণ্ডের কয়েক দিন পরই তদন্তে মুছার নাম চলে আসে। বাবুল আক্তার চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশে দায়িত্ব পালনকালে তার সোর্স হিসেবে পরিচিত ছিলেন মুছা। এ হত্যাকাণ্ডের সপ্তাহ দুয়েক পর থেকে এ পাঁচ বছর ধরে নিখোঁজ রয়েছেন মুছা। আজাদী অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!