Home | সাহিত্য পাতা | মানবতার বিলাপ

মানবতার বিলাপ

image_printপ্রিন্ট করুন

26

______ওয়ারদাতুল জিনান

মানবতার বিলাপধ্বনিতে প্রকম্পিত হচ্ছে ধরণী
চারিপাশে ধ্বনিত হচ্ছে রোহিঙ্গাদের ক্রন্দনধ্বনি,
বিশ্ববিবেক নির্বাক আজ, শুনছেনা আহাজারি
মানবতার আর্তনাদে গগনটা আজ ভারী।
আজি নীরবে শোকের মাতম করছে উদ্ভিদরাজি,
নৃশংস এই হত্যাযজ্ঞ সত্যি বড়ই মর্মস্পর্শী
মানুষ কিভাবে এত হিংস্র হয় ভেবে চলি নিরবধি!
রোহিঙ্গারাও যে মানুষ সেটা ভুলে গেছে বিশ্ববাসী
তাইতো তারা নিজ দেশে আজ হয়েছে পরবাসী,
বাঁচার অধিকার নিয়েছে কেড়ে ডাইনীবুড়ি সূচি
শান্তিনেত্রী নামধারী সে তো নোবেল কলঙ্কিনী।
রোহিঙ্গাদের রক্তে আজ রঞ্জিত হয়েছে নাফনদী
মুসলিম ওরা, ভাইবোন মোর- একই বিধাতার সৃষ্টি,
বৃদ্ধ- শিশু কাউকে তো আজ ছাড়ছেনা পিষাচীনি
তবে কি তুই ভুলেছিস আজ তোদের বৌদ্ধনীতি?
“অহিংসা পরমধর্ম”-সে তো আজ নিছক মিছে বুলি,
এই কি তোদের জীবপ্রেম? এই কি মানবপ্রীতি?
ছোট্ট নিষ্পাপ শিশুদেরও কেন দিচ্ছিস তোরা বলি?
দোষ কি তবে একটাই তাদের- তারা মুসলিমজাতি!
আর কত রক্তে মিটবে পিপাসা বলতো রাক্ষসী?
তোর মাঝে কি নেই কোন দয়া, একটু সহানুভূতি!
শান্তি পুরস্কার দে ফিরিয়ে দে- ওরে অংসান সূচি
বানরের গলায় মুক্তো যে বেমানান- জানিস না বুঝি!
অবয়বে মানুষ হলেও আস্ত তুই এক ডাইনী
মনুষ্যত্ব আজ তোকে দেখে হাসছে অট্টহাসি,
রোহিঙ্গা মুসলিম, তোদের কাছে করজোড়ে ক্ষমা চাচ্ছি
স্বজাতি হয়েও তোদের আমরা আশ্রয় দিতে পারিনি।
সীমান্তপথ বন্ধ করেছি, এ কেমন মোরা প্রতিবেশী?
বারবার দিয়েছি ফিরিয়ে তোদের, রাখিনি কোন মিনতি
নির্বাক আজ জাতিসংঘ, বধির হয়েছে ওআইসি।
কোথাও কি কেউ নেই? কোন ঈমানীশক্তি?
জানিনা কিভাবে কখন ঘুমন্ত বিবেক উঠবে জাগি!
হে বিধাতা, রোহিঙ্গারা কি পাবেনা তোমার কৃপাদৃষ্টি?
পাপীতাপী মোরা- তাই বলে কি দিয়েছ তুমি আড়ি?
বাঁচাও তাদের- পাঠাও একজন যোগ্য পাঞ্জেরী,
খালিদ বিন ওয়ালিদ না হয় সালাউদ্দীন আইয়ুবী
কিংবা আমির হামযার মতো কোন শক্তিধর রণপতি।
কেটে যাক অমানিশা, মুছে যাক সব গ্লানি
রোহিঙ্গাদের ভাগ্যাকাশেও উঠুক সোনালী রবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!