Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | ড. নদভী এমপি’র বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও মিথ্যা অপপ্রচার করায় সাংবাদিক সম্মেলন

ড. নদভী এমপি’র বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও মিথ্যা অপপ্রচার করায় সাংবাদিক সম্মেলন

image_printপ্রিন্ট করুন

17141058_10206431323661952_1141280800_n

এলনিউজ২৪ডটকম : চট্টগ্রাম- ১৫ সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনের সাংসদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীর সমর্থনে ৬ মার্চ সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজন করেছে সাতকানিয়া উপজেলা শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ পরিষদ।

সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাতকানিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রজিম উদ্দিন আহমদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা চাঁদাবাজ ও ধান্ধাবাজ একটি চক্রের মদপুষ্ট হয়ে মুক্তিযোদ্ধা নামধারী কর্ণেল (অবঃ) অলি আহমদের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে খ্যাত চাঁদাবাজ আবু তাহের প্রকাশ এলএমজি তাহেরের নেতৃত্বে ক্ষুদ্র একটি গোষ্ঠী মাননীয় এমপি প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী’র বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দাঁড় করিয়ে মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। তাঁরই অংশ হিসেবে গত ১ মার্চ চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে কথিত মানব বন্ধন কর্মসূচীর নামে মূলতঃ সাতকানিয়ার মুক্তিযোদ্ধাদের ব্ল্যাকমেলিং করা হয়। চট্টগ্রামের অন্যান্য উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যায় সাতকানিয়ার মুক্তিযোদ্ধারাও গত ১ মার্চ চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে মাননীয় গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেনকে মহান মুক্তিযুদ্ধে অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতির জন্য আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা নামধারী চাঁদাবাজ আবু তাহের সাতকানিয়ার মুক্তিযোদ্ধাদের ব্ল্যাকমেলিং করে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে মাননীয় এমপি’র বিরুদ্ধে কথিত মানব বন্ধন কর্মসূচির নামে মিথ্যা, বানোয়াট, অশালীন, কু-রুচীপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে ফটোসেশন করে পত্র পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রেরণ করে অপপ্রচার চালিয়ে জনমনে বিভ্রান্তির অপপ্রয়াস চালায়। আমরা সাতকানিয়া উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবার মাননীয় সাংসদের বিরুদ্ধে এসব মিথ্যাচার ও নোংরা রাজনীতির বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।

মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রমিজ বলেন, স্বাধীনতার ৪৩বছর পর সাতকানিয়া লোহাগাড়া আসনে স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত শিবিরের দূর্গ ভাঙ্গার লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ ও ইসলামি চিন্তাবিদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীকে মনোনয়ন দিয়ে একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বিগত নির্বাচনে। নির্বাচনে জামায়াত-শিবিরের তান্ডব ও বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবার পর থেকে বিগত তিন বছরে তাঁর নেতৃত্বে এলাকায় উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি হয়। যার সুফল বিশেষতঃ সাতকানিয়া লোহাগাড়ার মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আপমর জনসাধারণ উপলব্ধি করতেছেন। মাননীয় সাংসদের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বিগত পৌরসভা ও ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের অধিকাংশ প্রার্থী নিরঙ্কুশ বিজয় লাভ করে। প্রফেসর আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপি অবহেলিত সাতকানিয়া লোহাগাড়া ভাগ্য উন্নয়নের পাশাপাশি অত্র এলাকার শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছেন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে সাতকানিয়ায় উদ্বোধন করা হয়েছে ৩কোটি টাকা ব্যয়ে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স। পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত বিশাল এনজিও সংস্থা আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হিসাবে বিশ্বের ভ্রাতৃপ্রতিম বিভিন্ন দেশের সহায়তায় বাংলাদেশ তথা চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে মুক্তিযোদ্ধাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে এলাকা ভিত্তিক মসজিদ, গভীর নলকূপ, স্কুল, মাদ্রাসা, গরীব মুক্তিযোদ্ধাদের ছেলে-মেয়েদের পড়া লেখা, বিবাহ ও সুচিকিৎসার জন্য সবসময় বড় অংকের আর্থিক সহায়তা করে যাচ্ছেন তিনি। বেশ কয়েকজন অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধাকে ভারতে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য এরকম সহায়তাকারী একজন নিবেদিত প্রাণ মহৎ ব্যক্তিকে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বার্থবিরোধী এবং মুক্তিযোদ্ধা বিদ্বেষী আখ্যায়িত করা অত্যন্ত দুঃখজনক ও নিন্দনীয়। জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একনিষ্ঠ অনুসারী ও বঙ্গবন্ধুর আত্ম জীবনির আরবী অনুবাদক ও গবেষক প্রফেসর ড. আবু রেজা নদভী’র মত একজন সৎ, ন্যায়পরায়ন জনপ্রিয় সাংসদের বিরুদ্ধে কুৎসা রটানো সাতকানিয়ায় আওয়ামীলীগ তথা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কোন সৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ পরিবারের সদস্যরা কোন অবস্থাতেই মেনে নেবে না। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রমিজ উদ্দিন আহমদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধা বলতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারীদেরকে বুঝে থাকি। যে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছে তাঁকে অস্বীকারকারী কিংবা তাঁর শত্রুদের সাথে আতাঁতকারী কোনভাবেই মুক্তিযোদ্ধা পরিচয় বহনের অধিকার রাখেনা। কর্ণেল অলির মত বঙ্গবন্ধু বিরোধী ব্যক্তির আস্থাভাজন হিসেবে বিশেষভাবে পরিচিত আবু তাহের মূলতঃ একজন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা নামধারী চাঁদাবাজ। আমরা আজকের সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে মাননীয় এমপি’র বিরুদ্ধে সকল প্রকার ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার বন্ধ করে সুস্থ ধারায় ফিরে আসার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

17198087_10206431323581950_1488527361_n

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মোজাফ্ফর আহমদ, সাতকানিয়া উপজেলা শহীদ পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ পরিষদের সভাপতি, উপজেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও কালিয়াইশ ইউপি চেয়ারম্যান হাফেজ আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক, নলুয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আহমদ মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক চেয়ারম্যান নুর হোসেন চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সাতকানিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক সাংগঠনিক কমান্ডার আদিনাথ মজুমদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা প্রবীন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মাবুদ মাষ্টার, বীর মুক্তিযোদ্ধা পি. কে ধর রনু প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!