Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | চট্টগ্রাম-মদিনা রুটে বিমানের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

চট্টগ্রাম-মদিনা রুটে বিমানের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

image_printপ্রিন্ট করুন
images4
নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চট্টগ্রাম-মদিনা-চট্টগ্রাম রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটির উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।
আজ বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) প্রথম দিন দুপুর সোয়া ১টায় ২৬৫ জন যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রাম-মদিনা রুটের বিজি-১৩৭ ফ্লাইটটি যাত্রা শুরু করে। মদিনা থেকে ফিরতি ফ্লাইট বিজি-১৩৮ মদিনার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় ১২০ জন যাত্রী নিয়ে পরদিন ভোর ৪টা ২৫ মিনিটে চট্টগ্রাম পৌঁছাবে। এদিকে মদিনা ফ্লাইট চালু উপলক্ষে যাত্রীদের জন্য ১৫ শতাংশ ছাড় দেয়া হচ্ছে টিকিটে। বিমানের সব সেলস সেন্টার, ট্রাভেল এজেন্ট, বিমানের ওয়েবসাইট ও কল সেন্টারে এ টিকিট পাওয়া যাবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. মাহবুব আলী বলেছেন, অনেকে মধ্যপ্রাচ্যে ব্যবসা করেন। তারা হজ, ওমরা ও নবীজীর রওজা জেয়ারতে যান। তাদের সুবিধার্থে চট্টগ্রাম-মদিনা ফ্লাইট চালু করছি। এতে ভ্রমণ সহজ ও আরামদায়ক হবে। মন্ত্রী আরও বলেন, শতাধিক উড়োজাহাজ বিমানের বহরে যুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ চলছে। বিমান, সিভিল এভিয়েশনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে বড় অভিযানে যাবো। কাউকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না। কঠোর ও কঠিন ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিমানের উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নভেম্বর থেকে শাহজালালে থার্ড টার্মিনালের কাজ শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রী বিমানকে ভালোবাসেন। বিমান যাতে মাথা উঁচু করে চলে সেজন্য আরও ৯ সিরিজের দুইটি ড্রিম লাইনার আসছে। এপ্রিল-জুনে ২৭৩ কোটি টাকা লাভ করেছি। জানুয়ারি থেকে বিমানবন্দরের চার্জ, বিপিসির পাওনা পরিশোধ করে আসছি।
বক্তব্য দেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মো. মোকাব্বির হোসেন বলেন, ৪৬ বছর আগে যাত্রা শুরু করে বিমান। আমাদের নিজস্ব ১০টি আধুনিক বিমান আছে। এর বাইরে ৬টি এয়ার ক্রাফট ভাড়ায় নেয়া। ২৮ অক্টোবর ঢাকা-মদিনা ফ্লাইট চালু হয়েছে। চট্টগ্রাম থেকে ব্যবসায়িক ও ধর্মীয় কারণে যারা মদিনা যান তারা উপকৃত হবেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম থেকে মধ্যপ্রাচ্যের ফ্লাইট সরাসরি যাচ্ছে। ঢাকা থেকে চেন্নাই, কলম্বো, গুয়াংজু ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। আরও দুইটি নতুন ড্রিমলাইনার ডিসেম্বরে যুক্ত হবে। তখন নতুন নতুন গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করবে।
বিমানের উপ-মহাব্যবস্থাপক (পিআর) তাহেরা খোন্দকার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মো. মোকাব্বির হোসেন। উপস্থিত ছিলেন বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক উইং কমান্ডার সারওয়ার ই জামান, বিমানের চট্টগ্রাম জেলা ব্যবস্থাপক মো. নাজমুল হাসান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!