Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | চট্টগ্রাম থেকে সাড়ে ৩ ঘণ্টায় আগরতলা

চট্টগ্রাম থেকে সাড়ে ৩ ঘণ্টায় আগরতলা

image_printপ্রিন্ট করুন

115916agartala-train

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম থেকে আগরতলা সরাসরি চলবে ট্রেন। সাড়ে ৩ ঘন্টায় পৌঁছুবে সেটি। আগামী বছরের শেষের দিকে আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশের সাথে পশ্চিমবঙ্গকে ত্রিপুরার সঙ্গে যুক্ত করবে আখাউড়া-আগরতলা রেল লাইন। যা দুই দেশের মধ্যে পর্যটন, বাণিজ্য ও যোগাযোগ বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে। ১৫ কিলোমিটার এই রেললাইন নির্মাণ কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৭৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার দিচ্ছে ৫৭ কোটি টাকা। অবশিষ্ট টাকা ভারত সরকারের। গত বছরের (২০১৮ সালের) ১০ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

এই ব্যাপারে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী মো. সবুক্তগীন জানান, প্রকল্পের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। রেল এসে গেছে। ব্রিজের কাজও পুরোদমে শুরু হয়েছে। ২০২০ সালের শেষের দিকে গুরুত্বপূর্ণ এই রেল লাইনের কাজ শেষ হবে। চট্টগ্রাম থেকে ৩ থেকে সাড়ে ৩ ঘন্টায় আগরতলা পৌঁছবে ট্রেন।

রেল ভবন সূত্রে জানা গেছে, সমীক্ষা অনুযায়ী আখাউড়া-আগরতলা ১৫ কিলোমিটার রেলপথের মধ্যে বাংলাদেশের আখাউড়া রেল জংশন স্টেশন থেকে গঙ্গাসাগর রেলওয়ে স্টেশন হয়ে সোজা পূর্বদিকে ত্রিপুরা রাজ্যের নিশ্চিন্তপুর পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার। অপরদিকে ভারতের ত্রিপুরার নিশ্চিন্তপুর থেকে চারিপাড়া, বাধারঘাট মাতৃপল্লী, সিদ্ধিআশ্রম শ্মশান হয়ে আগরতলা রেলস্টেশন পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার।

নিশ্চিন্তপুর হবে দুই দেশের সীমান্ত স্টেশন। আগে ট্রেনে কলকাতা থেকে আগরতলায় যেতে ১৬০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হতো। আসামের গৌহাটি ও লামডিং থেকে দুবার ট্রেন পাল্টাতে হতো। এখন আখাউড়া-আগরতলা রেল লাইনের মাধ্যমে বাংলাদেশের মধ্যে দিয়ে ট্রেন যাতায়াত করলে সেই দূরত্ব এক-চতুর্থাংশে নেমে আসবে বলে জানান প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। -আজাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!