Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | স্মৃতিচারণ বক্তব্য শেষে চেয়ারে বসেই মৃত্যুর কোলে

স্মৃতিচারণ বক্তব্য শেষে চেয়ারে বসেই মৃত্যুর কোলে

image_printপ্রিন্ট করুন

Untitled-1

নিউজ ডেক্স : বাঁশখালীর কাথরিয়া বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২ দিনব্যাপী ৫০ বছর পূর্তি উৎসবের আজ শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) ছিল দ্বিতীয় দিন। দিনব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকাল থেকেই শুরু হয় প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠান।

যথারীতি কাথরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণ করছিলেন বিদ্যালয়ের ’৯৪ সালের প্রাক্তন শিক্ষার্থী রেজাউল করিম তালুকদার (৪০)। সময় তখন দুপুর আড়াইটা। তিনি দীর্ঘ প্রায় ২০ মিনিট বিদ্যালয়ের স্মৃতিকথা বন্ধুদের সাথে বিনিময় করে বক্তব্য শেষে বসে পড়েন চেয়ারে। মুহূর্তের মধ্যে ঢলে পড়েন চেয়ার থেকে। সহপাঠী ও বন্ধুরা মিলে তাকে দ্রুত বাঁশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসেন। বাঁশখালী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. শাহেদ তাকে মৃত ঘোষণা করেন। -দৈনিক আজাদী

এদিকে তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকটা স্থিমিত হয়ে পড়ে দুই দিনব্যাপী ৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান।

তার লাশ হাসপাতাল থেকে কাথরিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ কাথরিয়া পন্ডিত বাড়িতে নেয়া হলে শত শত জনতা তাকে দেখার জন্য ভিড় জমায়।

জানা যায়, রেজাউল করিম তালুকদার প্রকাশ লিটন ঢাকায় একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। তার পিতা নুরুল ইসলাম তালুকদার। ৩ ভাই ২ বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। তার ৫ বছর বয়সী একটি সন্তান রয়েছে।

এদিকে তার মৃত্যু সম্পর্কে কাথরিয়া বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূর্তি উৎসবের উপদেষ্টা অধ্যাপক এস এম আইয়ুব বলেন, ‘ঘটনাটি সত্যিই মর্মান্তিক। আমরা অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করে কোনো রকমে চালিয়ে নেব। তার স্মরণে আমরা শোক প্রস্তাব গ্রহণ ও নীরবতা পালন করবো। আগামীকাল রবিবার সকাল ১১টায় তার নামাযে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।’

কাথরিয়া-বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মত বিনিময়কালে আমি স্কুলের অফিস কক্ষে ছিলাম। সে বক্তব্য রেখে চেয়ারে বসার কিছুক্ষণ পর হঠাৎ পড়ে গেলে তাকে মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সে আমার মামাতো ভাই। তার মৃত্যুটা আমাদেরকে বেদনাহত করেছে।’

এদিকে স্কুলের ৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানমালায় সকাল থেকেই প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের স্মৃতিচারণ, মধ্যা‎হ্ন ভোজ ও রাতে বিশেষ আলোচনা সভাসহ খ্যাতিমান শিল্পীদের নিয়ে সঙ্গীত অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকলেও শনিবার রাত ৮টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আলোচনা সভার প্রস্তুতি চলছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!