Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি মারায় যুবক আটক

সাতকানিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি মারায় যুবক আটক

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি মারায় এক যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠায়। গ্রেপ্তারকৃতের নাম গিয়াস উদ্দিন (৩২)। উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নের গারাঙ্গিয়া মেম্বার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অন্তঃসত্ত্বা ঐ নারীর স্বামী জাকির হোসেন বলেন, “আমার মামাতো ভাই সেলিম উদ্দিন এবং তার স্ত্রী তছলিমা আক্তারের মধ্যে কিছুদিন যাবৎ পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে চলমান বিরোধ মীমাংসার জন্য তারা গত শুক্রবার গারাঙ্গিয়া বড় হুজুরের নাতি মামুন হুজুরের নিকট যায়। তখন মামুন হুজুর ফোন করে আমাকে সেখানে ডেকে নেন। ঐ সময় সোনাকানিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের গারাঙ্গিয়া বড় হুজুরের বাড়ি এলাকার আলী হোসেনের পুত্র গিয়াস উদ্দিনও সেখানে উপস্থিত ছিল। সেলিম এবং তার স্ত্রীর তছলিমার বিরোধ মীমাংসার বিষয়ে কথা উঠলে গিয়াস উদ্দিন তছলিমার পক্ষ নিয়ে কথা বলে। আমি সেলিমের পক্ষে কথা বলি। একই সাথে এলাকার মেম্বার এবং সেলিম অনুপস্থিত থাকায় বিষয়টি নিয়ে এক সপ্তাহ পরে পুনরায় বসতে বলে আমি চলে আসি।”

তিনি বলেন, “এদিকে, আমি সেলিমের পক্ষে কথা বলায় গিয়াস আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয় এবং দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এরই অংশ হিসেবে গিয়াস গত শনিবার দুপুরে আরো দুইজন সহযোগীসহ লোহার রড এবং লাঠিসোটা নিয়ে আমার বাড়িতে আসে। এক পর্যায়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ এবং আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে। তখন আমি বাড়ি থেকে বের হয়ে তার কথার প্রতিবাদ করার সাথে সাথে তারা আমাকে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে আঘাত করতে থাকে। এসময় আমার ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ইসমত আকতার আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে গিয়াস এবং তার সহযোগীরা তাকে পেটে লাথি মেরে ফেলে দেয়। আমাদের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে গিয়াসকে আটক করে এবং অন্য দুইজন পালিয়ে যায়।”

জাকির হোসেন আরো বলেন, “গিয়াসের দুই সহযোগী আমার ঘর থেকে ১ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৬০ হাজার টাকা লুটে নিয়েছে।” জাকির হোসেন জানান, পেটে লাথি মারার পর থেকে তার স্ত্রীর প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। বাচ্চার নড়াচড়া নাই। তার স্ত্রী বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানান তিনি।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, গারাঙ্গিয়া এলাকায় অন্তঃসত্ত্বা এক নারীকে পেটে লাথি মেরে আহত করার ঘটনায় এলাকার লোকজন গিয়াস উদ্দিন নামের এক যুবককে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ঐ নারীর স্বামী জাকির হোসেন বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।”

গ্রেপ্তারকৃত গিয়াসকে আজ রবিবার (২১ মার্চ) আদালতে হাজির করা হলে আদালত কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করে বলে জানান তিনি। আজাদী অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!