Home | উন্মুক্ত পাতা | বিজ্ঞপ্তি/বিজ্ঞাপন | লোহাগাড়া ডায়াবেটিক হাসপাতালে ফ্রি চিকিৎসায় সুস্থ্ হয়ে বাড়ি ফিরলেন সড়ক দূর্ঘটনায় আহত সাইফুল

লোহাগাড়া ডায়াবেটিক হাসপাতালে ফ্রি চিকিৎসায় সুস্থ্ হয়ে বাড়ি ফিরলেন সড়ক দূর্ঘটনায় আহত সাইফুল

image_printপ্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় ১৫ জনের মৃত্যুর পর বেঁচে যাওয়া সাইফুল গুরতর আহত অবস্থায় দীর্ঘ ১ মাস ২০দিন চিকিৎসার পর এখন মোটামুটি সুস্থ্ হয়ে উঠেছে।

সোমবার (১১ মে) রাত ৯টায় লোহাগাড়া ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল থেকে তাকে হাসি মুখে রিলিজ দেয়া হয়েছে। সে এখন মোটামুটি সুস্থ্।

তবে সাইফুল সুস্থ্ হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান ছিল লোহাগাড়া ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও উপজেলা বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান সমাজকর্মী আরমান বাবু রোমেলের। সেদিন তিনি মানবিকভাবে এগিয়ে আসার কারণে অসহায় সাইফুল মৃত্যুর পথ থেকে ফিরতে সক্ষম হয়েছে। যেই মূহুর্তে অজ্ঞান অবস্থায় দেখে কোন হাসপাতালে তাকে রিসিভ পর্যন্ত করেনি ঠিক সেই মূহুর্তে এগিয়ে এসে তাকে যথাযথ চিকিৎসা সেবা দিয়ে গেছেন এবং মানবিক বিবেচনায় হাসপাতালের চিকিৎসা বাবদ এক টাকাও নেয়নি তিনি।

সমাজকর্মী আরমান বাবু রোমেল বলেন, সড়ক দূর্ঘটনায় আহত সাইফুলকে প্রায় মৃত অবস্থায় লোহাগাড়া ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালে এনেছিলেন। আল্লাহর রহমতে হাসপাতালের চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও সেবায় সাইফুল এখন নিজে হেঁটে বাড়ি ফিরতে পেরেছেন। তারজন্য মহান রাব্বুল আলামীনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। এ হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার ১৬ বছরে এটি একটি বিরাট সফলতা বলে মনে করছেন তিনি। মানবিক দৃষ্টিকোণ বিবেচনা করে আহত সাইফুলকে হাসপাতালের পক্ষ থেকে সম্পূর্ণ ফ্রি চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়েছে। এছাড়া লোহাগাড়ার অসহায় ও দরিদ্র মানুষের চিকিৎসাসেবায় লোহাগাড়া ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল সবসময় পাশে থাকবে বলে জানান তিনি।

পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, দুর্ঘটনার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দীর্ঘ ১ মাস চিকিৎসাধীন ছিল আহত সাইফুল। ১ মাসেও তার শারীরিক কোন উন্নতি না হওয়ায় গত ২১ এপ্রিল তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় গ্রামে নিয়ে আসা হয়। গ্রামের বাড়িতে আনার পথে লোহাগাড়ার বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কোন হাসপাতাল তাকে গ্রহণ করেনি। কোন উপায় না পেয়ে অজ্ঞান অবস্থায় তাকে বাড়িতে নিয়ে গিয়ে শুয়ে রাখা হয়। ঠিক সে মূহুর্তে খবর পেয়ে লোহাগাড়া ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সমাজকর্মী আরমান বাবু রোমেল গাড়ি পাঠিয়ে হাসপাতালের নিয়ে গিয়ে টানা অক্সিজেন চালিয়ে সাইফুলের জ্ঞান ফিরিয়ে আনেন। ভর্তির পর থেকে তাকে সম্পুর্ন ফ্রি চিকিৎসাসেবা দিয়ে গেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ডাক্তার ও নার্সরা স্বেচ্ছায় টানা ২০ দিন চিকিৎসারসেবার পর সাইফুল এখন অনেকটাই সুস্থ্।

এমন অবস্থায় স্বেচ্ছায় এগিয়ে এসে সাইফুলকে ফ্রি চিকিৎসাসেবা দিয়ে সুস্থ্ করে তুলার জন্য সমাজকর্মী আরমান বাবু রোমেল এবং হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার নার্স, স্টাফ সহ এ পর্যন্ত সাইফুলের চিকিৎসার জন্যে যারা বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তার পরিবার। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!