Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়ায় নববধুর রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে এলাকাজুড়ে নানা গুঞ্জন

লোহাগাড়ায় নববধুর রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে এলাকাজুড়ে নানা গুঞ্জন

153

এলনিউজ২৪ডটকম : মেহেদীর রং না যেতেই নববধুর রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে লোহাগাড়া উপজেলার কলাউজান ইউনিয়নের পূর্ব কলাউজান অল্ল্যা মা’র পাড়াজুড়ে নানা গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। গত ১৭ আগষ্ট দুপুরে নববধুর শ্বশুরালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এটি হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু এ নিয়ে এলাকাবাসী ও নববধুর পিত্রালয়ের লোকজনের নানা সন্দেহ সৃষ্টি হচ্ছে। তবে এ মৃত্যুর সঠিক রহস্য জানতে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে জানা গেছে।

biman-ad

জানা যায়, গত ২৭ জুলাই ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক পূর্ব কলাউজানের অল্ল্যা মা’র পাড়ার আবদুল গফুরের পুত্র বিদেশ ফেরত কুতুব উদ্দিনের সাথে একই ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার প্রতিবন্ধী হাফেজ হোসাইন আহমদ’র (প্রকাশ লেইঙ্গা হাফেজ) কন্যা জন্নাতুল ফেরদৌস (১৯) এর ৪ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে নিকাহনামা ও ৩ আগষ্ট আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়।

নববধুর পিতা প্রতিবন্ধী হাফেজ হোসাইন আহমদ জানান, আমার মেয়ে ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিত। মেয়ে শ্বশুরবাড়ি যাবার পর জানতে পারে স্বামী কুতুব উদ্দীনের সাথে পার্শ্ববর্তী চাচাত ভাবীর পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে। মেয়ে তার স্বামীকে এসব আপত্তিকর সম্পর্ক থেকে বের হয়ে আসতে বলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছেন তার পরিবারের লোকজন।

তিনি জানান, ঘটনারদিন অনুমানিক দুপুর ১১টায় মেয়ের স্বামী কুতুব উদ্দীন হঠাৎ তার শ্বাশুড়ীকে মোবাইল ফোনে তাদের বাড়িতে যেতে বলে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এ সময় মেয়ের মা ফোনে মেয়ের শোর-চিৎকারের আওয়াজ শুনেছিল। এরপর দুপুর ১২টায় কে বা কারা ফোন করে তার মেয়ে মারা যাবার সংবাদ দেয় এবং তাদেরকে সেখানে যেতে বলেন।

তিনি আরো জানান, মেয়ের নানা বাড়ি ঘটনাস্থলের পাশে হওয়ায় মামি গিয়ে মেয়েকে উদ্ধার করে উপজেলা সদরের একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর মেয়ের লাশ তড়িগড়ি করে দাফন করার চেষ্টা করায় লোকজনের সন্দেহ হলে লোহাগাড়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। লোহাগাড়া থানার এসআই আহসান হাবিব ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়ের লাশ উদ্ধার করে এবং ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন।

ঘটনায় মেয়ের স্বামী কুতুব উদ্দিন, শ্বশুর আবদুল গফুর ও শ্বাশুড়ি ছমুদা খাতুনকে অভিযুক্ত করে নিহতের পিতা লোহাগাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আইয়ুব জানান, নববধুর রহস্যজনক মৃত্যুকে নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর ঘটনার সত্যতা জানা যাবে।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, অভিযুক্তদের নজরদারীতে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে, অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগে ব্যর্থ হওয়ায় এ ব্যাপারে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

লোহাগাড়ায় নববধুর মৃত্যু

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!