ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ার ১৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে ফৌজদারী অভিযোগ

লোহাগাড়ার ১৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে ফৌজদারী অভিযোগ

court_331226

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ার ১৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে ফৌজদারী অভিযোগ করেছেন উপজেলার পুটিবিলা পূর্ব তাঁতী পাড়ার শফিকুর রহমান (৮৫)। গত ১২ মে সিনিয়র জুডিসয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত নং- ২, চট্টগ্রামে এ অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগে প্রকাশ, অভিযুক্তরা খারাপ প্রকৃতির লোক। বাদী এলাকার একজন মুরুব্বী ও প্রাক্তন নির্বাচিত ইউপি সদস্য হন। অভিযুক্তরা বাদীর প্রতিবেশী আনোয়ার হোসেন ও রবি হোসেনকে ব্যবহার করে বাদীর দখলীয় ও মালিকানাধীন জায়গায় জোরপূর্বক ঘর নির্মাণের চেষ্টা করলে লোহাগাড়া থানায় মৌখিক অভিযোগ দায়ের করেন। থানার এসআই আবু বক্কর ঘটনাস্থলে গিয়ে বাদীর দখলাধীন সম্পত্তিতে কোন ধরণের ঘর নির্মাণের না করার জন্য বলেন। এর কয়েকদিন পর প্রতিপক্ষরা পুণরায় জোরপূর্বক বাদীর সম্পত্তির উপর ঘর নির্মাণের চেষ্টা করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে প্রতিপক্ষরা কাজ ফেলে পালিয়ে যায়।

অভিযোগে আরো প্রকাশ, গত ৩০ জুন গভীর রাতে প্রতিপক্ষরা বেআইনী জনতাবদ্ধ হয়ে বাদীর সম্পত্তির উপর জোরপূর্বক বাড়ির অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তের কাজ শুরু করে। গত ১ মে ভোররাত ৪টার দিকে চৌকিদার বানুকে দিয়ে আপোষের কথা বলে বাদীকে ঘুম থেকে ডেকে সুখছড়ি খালের ব্রীজের উপর নিয়ে যায়। সেখানে অভিযুক্ত নেছার, রবি ও আলমগীর অস্ত্র ঠেকিয়ে বাদীকে হত্যার চেষ্টা করে। চৌকিদার বানু ও দফাদার আজম দ্রুত ঘটনাস্থলে আসায় তা পন্ড হয়ে যায়। এছাড়াও অভিযুক্তরা বাদীকে পরিকল্পিতভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনপূর্বক তাদের শেখানো বক্তব্য দিতে বাধ্য করে এবং তা রেকর্ড করে। বাদীর কাছ থেকে জোরপূর্বক নেয়া রেকডিংসহ বিধ্বস্ত অবস্থায় ১ মে সকাল ৭টায় থানার ডিউটি অফিসারের সামনে একটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ উপস্থাপন করেন। ডিউটি অফিসারের সন্দেহজনক হওয়ায় অভিযুক্ত আনোয়ার হোসেন, রবি হোসেন ও আবদুল কাদেরকে থানায় আটকিয়ে রাখে। পরবর্তীতে অভিযুক্ত গিয়াস উদ্দিন, ফরিদুল আলম ও সরোয়ার আলম তদবীর করে বাদীকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। পরে অভিযুক্ত কর্তৃক বাদীকে অপহরণ করে হত্যার চেষ্টা এবং পরবর্তীতে অস্ত্র দিয়ে থানায় উপস্থাপনের বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। এতে বাদীর পরিবারের সদস্যগণসহ এলাকার লোকাজন অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় থানা কর্তৃপক্ষ কৌশলে পরিস্থিতি শান্ত করে ২ মে বাদীকে গ্রেফতার দেখিয়ে কোর্টের মাধ্যমে হাজতে প্রেরণ করেন। এছাড়াও বাদীকে মিথ্যা অস্ত্র মামলায় ফাঁসানোর জন্য থানায় অস্ত্র উপস্থাপনকারী ৩ জনের একজন রবি হোসেনকে অন্য দু’সহযোগীর সাথে সকাল থেকে বাদীকে কোর্টে চালান না দেয়া পর্যন্ত অবৈধ অস্ত্র থানায় উপস্থাপনের দায়ে আটক রাখে।

অভিযোগে আরো প্রকাশ, ষড়যন্ত্রমূলক মামলা থেকে বাদী গত ৮ মে জামিনের আদেশ লাভের পর ৯ মে চট্টগ্রাম জেলা কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করে। বাদী অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে থানায় কোন প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে না পারায় ন্যায় বিচারের আশায় আদালতে আশ্রয় নিয়েছেন। অভিযুক্তরা পরিকল্পিতভাবে বাদীকে অপহরণ করে হত্যার চেষ্টা, মারধর ও অবৈধ অস্ত্র দিয়ে থানায় মিথ্যা অস্ত্র মামলায় জড়ানোর চেষ্টা ও অবৈধ অস্ত্র থানায় উপস্থাপন করে দন্ডবিধি ১৪৯/৩৬৪/৩২৩/৫০৬/৩৪ ধারা তৎসহ অস্ত্র আইনের ১৯এ ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫ডি ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন। তাই ন্যায় বিচারের আশায় বাদী আদালতে আশ্রয় নিয়েছেন।

অভিযুক্তরা হলেন পুটিবিলা পূর্ব তাঁতী পাড়ার আনোয়ার হোসেন (৪৩), রবি হোসেন (৩৫), আবদুল কাদের (৩০), শাহ আলম (৩৫), মোজাফফর আহাম্মদ (৪৫), রফিক আহাম্মদ (৩৫), গিয়াস উদ্দিন (৫০), পুটিবিলা পশ্চিম তাঁতী পাড়ার মমতাজুর রহমান (৪৫), ফরিদুল আলম (৫০), পশ্চিম কলাউজানের নেছার উদ্দিন (৪০), আলমগীর (৪২), মোঃ দিদার (৩৮), জামাল উদ্দিন (৫০) ও দরবেশহাট সওদাগর পাড়ার মোঃ সরোয়ার আলম (৪৫)।

biman-ad

অপরদিকে, অভিযুক্ত কারো সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হওয়ায় এ ব্যাপারে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!