ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লবনবাহী ট্রাকের নিঃসৃত পানিতে পিচ্ছিল মহাসড়ক : দূর্ঘটনার আশংকা

লবনবাহী ট্রাকের নিঃসৃত পানিতে পিচ্ছিল মহাসড়ক : দূর্ঘটনার আশংকা

112

এলনিউজ২৪ডটকম : প্রতিদিন-রাত অসংখ্য লবনবাহী ট্রাক খোলামেলাভাবে চট্টগ্রাম-মহাসড়ক অতিক্রম করছে। ট্রাক হতে নিঃসৃত পানিতে আরকান সড়ক পিচ্ছিল হওয়ায় পরিবেশবাদীরা দূর্ঘটনার আশংকা প্রকাশ করেছেন। তারা ট্রাকে জিইওট্যাক্স (মোটা তেরপাল) ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছেন। তারা বলছেন লবনবাহী ট্রাকে জিইওট্যাক্স ব্যবহার বাধ্যতামূলক। পরিবেশ সুরক্ষা রাখতে জিইওট্যাক্স ব্যবহারের বিকল্প নেই।

জানা যায়, এ মৌসুমে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ, টেকনাফ, মহেশখালী, উখিয়া, কুতুবদিয়া, চকরিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় লবন উৎপাদিত হয়। নৌপথ ও স্থল পথে এসব লবন দেশের বিভিন্নস্থানে প্রেরণ করা হয়। চট্টগ্রামের মাঝিরঘাট ও পটিয়া ইন্দ্রপুল এলাকায় লবন পরিশোধনাগার রয়েছে।

এসব স্থান ছাড়াও ঢাকা, নোয়াখালী, ঝালকাটি, কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে লবন পরিশোধনাগার রয়েছে। ট্রাকেই মূলত এসবস্থানে লবন পরিবহন করা হয়। জিইওট্যাক্স ব্যবহার না করার ফলে সারা রাস্তায় পানি চুয়ে পড়ে। রাতে কুয়াশার স্পর্শে লবন নিঃসৃত পানি রাস্তায় আঠাল আস্তরণ সৃষ্টি করে। চলমান গাড়ি ব্রেক কষলেই আঠাল আস্তরণের স্পর্শে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। ফলে দূর্ঘটনার সৃষ্টি হয়।

এখন পর্যটন মৌসুম। দেশের বিভিন্নস্থান থেকে পর্যটকরা আসেন কক্সবাজারে। অন্য জায়গা থেকে আসা চালকদের এ সড়ক সম্পর্কে অভিজ্ঞতা কম। ফলে পিচ্ছিল অবস্থায় পর্যটকবাহী যানবাহনের চালকরা যানবাহন নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়। এদিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক সংলগ্ন স্থানীয়রাও প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। জিওট্যাক্স বিছানো ছাড়া লবনবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করার জোরদাবী জানিয়েছেন সচেতন মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*