ব্রেকিং নিউজ
Home | সাহিত্য পাতা | ফিরোজা সামাদ’র ২টি কবিতা

ফিরোজা সামাদ’র ২টি কবিতা

509

মানবতার মুখোশ

অামায় তোমরা চিনতে পারো ?
অামি তো মানব নই !
মানবরূপী দানব মাত্র ,
তাইতো মানুষের রক্ত চুষে
তৃষ্ণা মেটাই স্বার্থের বিনিময়ে,
মানবতা অামার পদতলে মাথা ঠুকে
মরছে অবিরত !!

অামি বধির অার্তনাদ পৌঁছেনা
অামার কর্ণকুহরে,
তাইতো নির্লিপ্ততায় নিমজ্জিত অামি
কে অাছে অামার মাঝে বপণ করে
মানবতা ও ভালোবাসার বীজ ?

রক্তে অামার নেশা জাগে
অাগুন অামায় করে পুলকিত
কামান, মাইন অামায় করে উচ্ছাসিত
অামার বিবেক নাফ নদীতে নিমজ্জিত
তাকে জাগিয়ে তোলার সাধ্য নেই
কোনো বিশ্ব মানবতার ???

বিশ্ব মানবতা?
হা! হা! হা! হা!
ওতো মুখরা রমনীর মতো,
শুধু দন্দ ও কলহ করে বেড়ায় যত্রতত্র,
ওরাই তো অামার অাদেশদাতা !
নাট্যমঞ্চে মুখোশ পড়ে করে যায়
প্রতিনিয়ত অভিনয় !!


উলঙ্গ নিষ্ঠুরতা

মৌনতার চাদরে জড়ানো মানবতা
জুবুথুবু পড়ে থাকে একপাশে,
উলঙ্গ নৃত্যকরে বেড়ায় নিষ্ঠুরতা !!
কতোক্ষণ দেখবে নৃত্য
মানবতার হাত পা বেঁধে রেখে ?
অামরা কি ভিরু কা-পুরুষ ?
মানুষ নই ?
তাহলে মরছিনা কেনো?
কা-পুরুষ মরে প্রতি মুহুর্তে
মানুষ তো মরে একবারই !
অামি একবার মরতে চাই,
বার বার, প্রতিমুহূর্তে নয়,
যতোই অাসুক পিশাচের দল
হে নবীন হও অাগুয়ান,
তোমরাই পারবে রাক্ষস দমনে
বলিষ্ঠ মনে নিরস্ত্র হাতিয়ারে ??
রক্তপিপাসু রাক্ষসের
শিরোচ্ছেদ হোক তোমাদের হুঙ্কারে
হাতে হাত রেখে মানবতার বাঁধনে
জড়িয়ে নাও অাজকের তারুণ্যের
বিজয় মালা !!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*