Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | চকরিয়ায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে আবারো অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর

চকরিয়ায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে আবারো অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর

image_printপ্রিন্ট করুন

180424a@

নিউজ ডেক্স : কক্সবাজারের চকরিয়ায় ফের অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে কক্সবাজার-১ আসনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী নৌকা প্রতীকের জাফর আলমের নির্বাচনী কার্যালয়ে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) গভীর রাতে উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে স্থাপিত নৌকা প্রতীকের এই নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। স্থানীয় আওয়ামী লীগ এ ঘটনায় দায়ী করেছে বিএনপিকে।

খুটাখালী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম দাবি করেছেন, নৌকা প্রতীকের প্রচারণা ও স্থানীয় ভোটারদের বসার জন্য কয়েকদিন আগে তাঁর ওয়ার্ডে স্থাপন করা হয় নির্বাচনী কার্যালয়। এটি উদ্বোধন করেন কক্সবাজার-১ আসনে নৌকার মাঝি জাফর আলম। এরপর কয়েকদিন ধরে সেখানে নির্বাচনী আড্ডাসহ এলাকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য নৌকা প্রতীকের পক্ষে ভোট চেয়ে বিভিন্ন গান-বাজনা শোনানো হয় ভোটারদের।

বৃহস্পতিবার রাতের কোনো একসময় দাহ্য পদার্থ ঢেলে আগুন দিলে পুড়ে যায় নির্বাচনী কার্যালয়ের কিছু অংশ। এ সময় ভাঙচুর করা হয় কার্যালয়ের ভেতর রক্ষিত চেয়ারসহ বিভিন্ন আসবাবপত্রও। তবে স্থানীয় লোকজন আঁচ করতে পেরে তাৎক্ষণিকভাবে আগুন নিভিয়ে ফেলায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে আশপাশের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো রক্ষা পায়।

খুটাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. বেলাল আজাদ অভিযোগ করেন, একসময়ের বিএনপির ঘাঁটি খুটাখালীতে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার শুরু হয়েছে। তাই স্থানীয় বিএনপি বিষয়টিকে ভালোভাবে নিচ্ছে না। এ কারণে নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ করেছে বিএনপির লোকজন। এ ঘটনায়  কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপির প্রার্থী শান্তিপূর্ণ প্রচারণায় বিশ্বাসী নন। তাই আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয় ও প্রচারগাড়িতে একের পর এক অগ্নিসংযোগ, গুলি ও হামলা করছে বিএনপির সশস্ত্র লোকজন।’

চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘খুটাখালীতে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তিসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ইতিপূর্বে উপজেলার লক্ষ্যারচর, ঢেমুশিয়া, বরইতলী, চিরিঙ্গাসহ বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যালয় ও প্রচারগাড়িতে অগ্নিসংযোগ, হামলা, ভাঙচুর ও গুলি চালানোর একাধিক ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় বিএনপি জড়িত রয়েছে বলে দাবি করে আসছে আওয়ামী লীগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!