Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | আগামী মাস থেকে লোডশেডিং থাকবে না : পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী

আগামী মাস থেকে লোডশেডিং থাকবে না : পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী

image_printপ্রিন্ট করুন

0b1e8e25e11518f14994c7afc63ee632

নিউজ ডেক্স : বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানে পিডিবি কর্তৃপক্ষের সাথে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বৈঠক করেছেন। নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরীর চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল পিডিবির প্রধান প্রকৌশলীর সাথে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ জানতে চান ‘বর্তমান সরকারের আমলে বিদ্যুতের এতো উন্নয়ন–কিন্তু এই উন্নয়নের সুফল জনগণ ভোগ করতে পারছে না কেন? কেন এতো ঘনঘন লোডশেডিং? জবাবে পিডিবি চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন বলেন, বিদ্যুৎ খাতে সরকারের যে সাফল্য–তার সুফল জনগণের মাঝে পৌঁছে দিতেই আমরা কাজ করছি। লোডশেডিংয়ের মাত্রা কমে আসছে। সামনে আরো কমে আসবে। আমরা সেই চেষ্টাই করছি। আগামী মাসের শেষ সপ্তাহের মধ্যেই রক্ষণাবেক্ষণ কাজ সমাপ্ত হলে লোডশেডিং তেমন থাকবে না। এছাড়া দুর্নীতি অনিয়ম ও অবহেলার যে অভিযোগ করা হয়েছে এর সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে অবশ্যই চিহ্নিত করা হবে। রেকর্ড পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্যকে আমরা ধরে রাখতে চাই। তিনি বলেন, জনবলের স্বল্পতা এবং রক্ষণাবেক্ষণের ক্ষেত্রে বিশেষ করে অত্যাধুনিক সরঞ্জামের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহের ক্ষেত্রে কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রেও যান্ত্রিক কারণে সমস্যা দেখা দেয়। সর্বোপরি প্রায় প্রতিদিনই গ্রাহকের সংখ্যা বাড়ছে।

সভায় মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ পিডিবির প্রধান প্রকৌশলীকে অবহিত করেন যে, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন সরকার দেশে রেকর্ড পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সত্ত্বেও চট্টগ্রামে বিদ্যুৎ বিতরণে নানা ধরনের ত্রুটি স্পষ্ট হওয়ায় নগরবাসী ক্ষুব্ধ। লক্ষ্যণীয় যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শতভাগ আন্তরিকতা সত্ত্বেও বিদ্যুৎ বিভাগের মুষ্টিমেয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা–কর্মচারীর নেতিবাচক কর্মকাণ্ড আমাদেরকে ভাবিয়ে তুলেছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, বিদ্যুৎ সরবরাহের কার্যক্রমের মত একটি জরুরি রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনার কার্যক্রমে ব্যক্তি বিশেষের অবহেলা ও দায়িত্ব জ্ঞানহীনতার কারণে সিস্টেম লসের অজুহাত দেখিয়ে বিদ্যুৎ সংকটকে ঘনীভূত করা হয়েছে। যা কখনো কাম্য নয়। আমরা মনে করি কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে আন্তরিক হয়ে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট হলে সমস্যার আশু সমাধান সম্ভব।

এসময় প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন বলেন, সাময়িক বিদ্যুৎ সংকটের কারণগুলো অনুসন্ধান করে তা তাৎ ণিকভাবে সমাধানে আমরা আপ্রাণ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। গ্যাস প্রবাহের স্বাভাবিক চাপ না থাকায় চট্টগ্রামে শিকলবাহায় দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও রাউজান তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে চাহিদামাপিক বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রদান সম্ভব হচ্ছে না। প্রিপেইড মিটার সিস্টেমে হঠাৎ বন্ধ হয়ে গেলে তা আবার চালু করতে বিড়ম্বনা, ট্রান্সফরমার বিকল হওয়া জনিত কারণে সৃষ্ট ভোগান্তি লাঘব, ভুতুড়ে বিল প্রদান বন্ধ করা এবং প্রিপ্রেইড কার্ড বিতরণের ক্ষেত্রে বিক্রয়কেন্দ্র বাড়ানোসহ হয়রানি বন্ধে মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধান প্রকৌশলী জানান, প্রিপেইড সিস্টেমটি সবেমাত্র চালু হওয়ায় কিছু গলদ থাকতেই পারে। প্রকৌশলী ও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে এই সব সমস্যার তড়িৎ সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হবে। তিনি চট্টগ্রামের বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থার ত্রুটি–বিচ্যুতি নিরসন এবং বিদ্যুৎ সরবরাহ কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার তাগিদ জানিয়ে আলহাজ্ব এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী চিঠি প্রদান করায় তার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

গতকাল পিডিবির প্রধান প্রকৌশলীর সাথে বৈঠকের ব্যাপারে নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন আজাদীকে জানান, আমরা মিটিংয়ে পিডিবির প্রধান প্রকৌশলীসহ অন্যান্য প্রকৌশলীর কাছে জানতে চেয়েছি, বর্তমান সরকারের অল্প সময়ের মধ্যে বিদ্যুতের এতো উন্নয়ন–সফলতা শুধু দেশে নয়, আন্তর্জাতিক ভাবেও প্রশংসিত হয়েছে। কিন্তু এই উন্নয়নের ফল জনগণ ভোগ করতে পারছে না কেন? এতো ঘনঘন লোডশেডিং কেন তা জনগন জানতে চান। আমরা দেখছি অনেক হাসপাতাল–ক্লিনিকে অপারেশন করার সময় হঠাৎ বিদ্যুৎ চলে যায়। প্রধান প্রকৌশলীকে বলেছি আপনারা নোটিশ দিয়ে বিদ্যুৎ বন্ধ করছেন সেটা জনগন মেনে নিচ্ছে। কিন্তু তারপরও ঘনঘন লোডশেডিং কেন? প্রিপেইড মিটার সম্পর্কে বলেছি–সরকার ডিজিটাল মিটার সিস্টেম চালু করেছে। সরকারের এই উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানাই। কিন্তু প্রিপেইড মিটারের কার্ড সহজলভ্য নয়। এটাকে আরো সহজ লভ্য করতে হবে। সব জায়গায় প্রিপেইড মিটার পাওয়া যাচ্ছে না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে মানুষেকে কার্ড সংগ্রহ করতে হচ্ছে।

মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন আলহাজ্ব নঈম উদ্দিন চৌধুরী, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, শফিক আদনান, শফিকুল ইসলাম ফারুক, এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মশিউর রহমান চৌধুরী প্রমুখ। বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের মধ্যে বৈঠকে প্রধান তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বি এম জাহাঙ্গীর, প্রকৌশলী মো. শামসুল আলম, প্রকৌশলী মকবুল হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী উজ্জ্বল বড়ুয়া, সহকারী প্রধান প্রকৌশলী মো. ইমাম হোসেন, প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন, উপ পরিচালক (হিসাব) মো. সালেহ আহমদ প্রমুখ।

আজ চসিক ও ওয়াসার সাথে বৈঠক

প্রস্তাবিত গৃহকর বাতিলের জন্য সিটি মেয়রের কাছে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর দেয়া চিঠির প্রে িতে আজ বিকাল ৪টায় বৈঠকের জন্য আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে আহবান জানিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। সিটি কর্পোরেশনের সভা কক্ষে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। মেয়রের সাথে বৈঠকের বিষয়টি নিয়ে সমন্বয় করার জন্য নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলের দপ্তর সম্পাদক হাসান মো. শমসেরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। গতকাল তাকে আজকের বৈঠক সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে।

এদিকে নগরীর পানির সমস্যা সমাধানে সকাল ১১টায় ওয়াসা কার্যালয়ে ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহর উপস্থিতিতে মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। –আজাদী প্রতিবেদন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!