Home | শীর্ষ সংবাদ | অধ্যক্ষের কক্ষে দরজা লাগিয়ে শিক্ষক ও লেখককে লাঞ্চিত

অধ্যক্ষের কক্ষে দরজা লাগিয়ে শিক্ষক ও লেখককে লাঞ্চিত

লাঞ্চিত-600x330

নিউজ ডেক্স : উপন্যাসে চরিত্রের সঙ্গে নিজের নামের মিল থাকার অভিযোগে তেঁতুলিয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক ও লেখক হাফিজুদ্দিনকে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে সহকর্মী শওকত আলীর বিরুদ্ধে। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শিক্ষক শওকত।

হাফিজুদ্দিন প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে তেঁতুলিয়া ডিগ্রি কলেজে অধ্যক্ষের কক্ষে আমাকে ডেকে নিয়ে যান শওকত আলী। পরে তিনি আমাকে বলেন, আপনার লেখা ‘মেঘ রৌদ্রের খেলা’ উপন্যাসে শওকত চরিত্রটি আমাকে নিয়ে এবং এতে কলেজের বিরুদ্ধে অনেক কিছু রয়েছে। যা আমি আপনার ফেইসবুক পোস্টেও মাধ্যমে জেনেছি। আপনি আপনার উপন্যাস থেকে ওই চরিত্রটি বাদ দেন। আমি রাজি না হওয়ায় আমাকে গালমন্দ করে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন।

হাফিজুদ্দিন আরও দাবি করেন, তার উপন্যাসে রাজনৈতিক বা জাতি বিদ্বেষমূলক কোনো কথা বা ঘটনার উল্লেখ নেই। বরং একটি নির্মল পারিবারিক হাসি-আনন্দের ঘটনাবলী প্রকাশ পেয়েছে। উপন্যাসের অন্যতম চরিত্র শওকত সাহেব ও লিয়াকত মেম্বারের পেশা, চরিত্র ও ঘটনা ও ঘটনাস্থলের সাথে শওকত আলী কোনোই মিল নেই। কয়েকদিন ধরে অধ্যক্ষ স্যার কলেজে নেই। তিনি কলেজে ফিরলে এ বিষয়ে অভিযোগ করব। আর বৃহস্পতিবার ইউএনওর কাছে অভিযোগ করবেন বলে জানান হাফিজুদ্দিন।

বিষয়টি নিয়ে দুপুরে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের প্রভাষক শওকত আলীর সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন, এরকম কোন ঘটনা ঘটেনি। পরে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথাবলার প্রতিশ্রুতি দেন শওকত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*