Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | শপথ নিতে গেলেন চসিক মেয়র রেজাউলসহ কাউন্সিলররা

শপথ নিতে গেলেন চসিক মেয়র রেজাউলসহ কাউন্সিলররা

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : শপথ নিতে ঢাকায় গেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নবনির্বাচিত মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীসহ কাউন্সিলররা।  বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) শাহ আমানত বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে ঢাকায় পৌঁছেন মেয়র। চসিকের শপথের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও অপর ফ্লাইটে ঢাকা পৌঁছেছেন।  

অন্যদিকে দামপাড়া জমিয়তুল ফালাহ মাঠ থেকে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকসহ নবনির্বাচিত ৫৩ কাউন্সিলর দুইটি এসি বাস ও ব্যক্তিগত গাড়ির বহর ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। এর আগে তাদের বিদায় জানান নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী।  

কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন বলেন, জমিয়তুল ফালাহ মাঠ থেকে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনসহ কাউন্সিলরদের বহর নিরাপদে ঢাকায় পৌঁছেছে। দুইটি এসি বাসসহ ১০-১৫টি গাড়ি ছিল বহরে।  

চসিক ও দলীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় ঢাকার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে চসিকের নতুন মেয়রকে ভার্চুয়ালি শপথ পাঠ করাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শপথ গ্রহণের পরে সেখান থেকে  নেতাকর্মীদের নিয়ে নব নির্বাচিত মেয়র যাবেন ৩২ নম্বরের ধানমন্ডিতে। সেখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন তিনি। বেলা ১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন মেয়র। পর দিন শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) মেয়রের বহর রওনা দেবে টুঙ্গিপাড়ায়। সেখানে জেয়ারত ও শ্রদ্ধা জানানো শেষে রওনা দেবেন চট্টগ্রামের উদ্দেশে।  

চট্টগ্রামে সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে চসিক আয়োজিত সুধী সমাবেশে যোগ দেবেন মেয়র। ইতিমধ্যে চট্টগ্রামের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রধান, রাজনীতিক, সাংবাদিকসহ অতিথিদের আমন্ত্রণপত্র বিতরণ করা হয়েছে।  সমাবেশ শেষে টাইগারপাসে চসিকের কার্যালয়ে মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন রেজাউল করিম চৌধুরী।  

গত ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।  তিনি ৩ লাখ ৬৯ হাজার ২৮৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ডা. শাহাদাত হোসেন পেয়েছেন ৫২ হাজার ৪২৯ ভোট। নির্বাচন ভোট পড়েছে ২২ শতাংশ।  

সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর পদে ১৪ জন এবং সাধারণ আসনের কাউন্সিলর পদে ৪০ জন নির্বাচিত হয়। চসিকের ৩১ নম্বর আলকরণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী তারেক সোলেমান সেলিমের মৃত্যুতে ওই পদে নির্বাচন হয়নি। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ হবে। বাংলানিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!