Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়া থানায় মারধরের অভিযোগ করায় পুণরায় মারধর!

লোহাগাড়া থানায় মারধরের অভিযোগ করায় পুণরায় মারধর!

image_printপ্রিন্ট করুন
ভুক্তভোগী চাচা-ভাতিজা

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ায় মোস্তফা আল হোসাইন ইমরান (২১) নামের এক কলেজছাত্রকে মারধর করার অভিযোগ পুলিশ তদন্ত করতে যাওয়ায় ভুক্তেভোগীর চাচাকেও মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (৬ জুলাই) বিকেল ৪ টার দিকে উপজেলার উত্তর চরম্বা দেওয়ান আলী সিকদার পাড়ার দোকানের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে।

একইদিন রাতে ওই এলাকার মৃত আহমদুল্লাহর ছেলে নুরুল আবছার, তার ছোট ভাই শহিদুল ইসলাম ও শামসুল আলমের ছেলে জসিম উদ্দিন হেলালীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে লোহাগাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পটিয়া সরকারি কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র মোস্তফা আল হোসাইন ইমরান।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ৪ জুলাই রাত সাড়ে ৮টার দিকে কলেজছাত্র ইমরান স্থানীয় দোকানে বাজার করতে গেলে স্থানীয় নুরুল আবছার কথা আছে বলে আমাকে ডেকে অন্ধকারে নিয়ে যায়। এর পর কিছু বুঝে উঠার আগেই তাকে কিল-ঘুষি-লাথি মারতে মারতে পার্শ্ববর্তী পাহাড়ের দিকে নিয়ে যেতে টানা-হেঁচড়া করে। পরে চিৎকার করলে আশ-পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সে পালিয়ে যায়। এ ঘটনার পর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে এএসআই শ্যামল দত্ত সোমবার বিকেল ৪টার দিকে ঘটনার বিষয়ে তদন্ত করতে ঘটনাস্থলে যায়।

এতে প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে অভিযোগকারীর চাচা শফিক আহমদ সিকদারকে গলা টিপে ধরে কিল-ঘুষি-লাথি মেরে গুরুতর আহত করে। এ সময় স্থানীয় লোকজন ও এএসআই শ্যামল দত্ত প্রতিপক্ষদের হাত থেকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। প্রতিপক্ষরা ভূক্তভোগী কলেজছাত্র ও তার চাচাকে মারধর করেও শান্ত হয়নি। প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকিও দিয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ ঘটনায় সোমবার রাতেই পুণরায় থানায় লিখিত অভিযোগ ভূক্তভোগী কলেজ ছাত্র।

এএসআই শ্যামল দত্ত জানান, সোমবার বিকেলে কলেজ ছাত্র ইমরানের ওপর হামলার ঘটনার অভিযোগ তদন্তে গিয়েছিলাম। তদন্ত করে যথারীতি ফিরে আসার পথে খবর পেলাম বাদী-বিবাদীর মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মারামারি হয়েছে।

লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে এসআই অজয়দেব শীলকে পাঠিয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষ যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!