Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, মহিলাসহ আহত ২৫

লোহাগাড়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, মহিলাসহ আহত ২৫

image_printপ্রিন্ট করুন

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ার চুনতিতে জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের মহিলাসহ প্রায় ২৫ জন আহত হয়েছেন। শনিবার (২৭ মার্চ) সকাল ৮টার দিকে ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ফারেঙ্গা পূর্বকূল ফারা বিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, ওই এলাকার মৃত আজিজুর রহমানের পুত্র মো. মুছা (৭০), তার পুত্র মমতাজ মিয়া (৪৫), আলতাফ মিয়া (৪৩), শাহাব উদ্দিন (৩৩), নুরুন্নবী (৩২), স্ত্রী মাবিয়া খাতুন (৫০), নাতী মেহেদী হাসান (২০), আলতাফ মিয়ার স্ত্রী খতিজা বেগম (৩৫), মৃত টুনু মিয়ার পুত্র জানে আলম (৪৫), আবুল হোসেন (৪০), মো. রাসেল (১৮) মৃত কালু মিয়ার পুত্র মো. ওসমান (৩৫), তার স্ত্রী আমেনা বেগম (৩০), মৃত আবদুল মোতালেবের পুত্র মো. ইসলাম (৩৫), মেয়ে হাসিনা বেগম (২৫), ফজর আলীর পুত্র নুরুচ্ছফা (৫৫), ফয়েজ আহমদের স্ত্রী রেহেনা আক্তার (৩০), মৃত রমজান আলীর পুত্র খায়ের আহমদ (২৫), মো. জাহেদ (১৮), আসহাব মিয়ার পুত্র ফরিদুল আলম (৪০) ও মৃত আমির হোসেনের পুত্র তাজ উদ্দিন (৩৫)। এছাড়া বাদশা মিয়া ও মোবারক আলী স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, মুছা ও জানে আলম পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন থেকে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনারদিন জানের আলমের দখলীয় জমিতে মুছার লোকজন বাড়ি নির্মাণ ও চাষাবাদ করতে গেলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষ ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটার আঘাতে প্রায় ২৫ জন আহত হন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জানে আলম জানান, মূলত বিরোধীয় জমি খাস খতিয়ানভূক্ত। উক্ত জমি দীর্ঘদিন যাবত জানে আলমের দখলে ছিল। কয়েক বছর আগে মুছা উক্ত জমি তার নামে বন্দোবস্তি করেন। ঘটনারদিন জানে আলমের দখলীয় জমিতে মুছার লোকজন বাড়ি নির্মাণ ও চাষাবাদের কাজ করতে গেলে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর পূর্বেও মুছার লোকজন জায়গাটি দখল করতে গিয়ে সংঘর্ষে ঘটনা ঘটেছিল।

লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্তব্যর চিকিৎসক ডা. সাবরিন জাহান জেসি জানান, মহিলাসহ ১৮ জনকে হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় ১৭ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত সবার ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!