Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | কক্সবাজারের ঘোড়ার খাদ্য-আবাসন নিশ্চিতে আইনি নোটিশ

কক্সবাজারের ঘোড়ার খাদ্য-আবাসন নিশ্চিতে আইনি নোটিশ

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : পর্যটন নগরী কক্সবাজারে বিদ্যমান ঘোড়া, ঘোড়ার মালিকদের তালিকা প্রস্তুত করে জীবিত ঘোড়াগুলোর খাদ্য ও আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে সরকারকে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে অসুস্থ ঘোড়াগুলোর চিকিৎসা করাতে অনুরোধ করা হয়েছে ভেটেরিনারি হাসপাতালে পাঠানোর।

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি (ইয়েস) ও পিপল ফর অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের পক্ষে এ নোটিশ পাঠান আইনজীবী সাঈদ আহমেদ কবীর।

সোমবার (৩১ মে) তিনি বলেন, ৩০ মে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিলের সভাপতি, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ও কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে। পাঁচদিনের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে নোটিশে। বাংলানিউজ

নোটিশে বলা হয়েছে, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি কক্সবাজার নগরীর তার অপররূপ সৌন্দর্যের জন্য বিশ্বব্যাপী পরিচিত। এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন লক্ষাধিক পর্যটক এ নগরীতে ভীড় জমায়। দেশ-বিদেশ থেকে আগত এসব পর্যটক বিনোদনের অংশ হিসেবে ঘোড়ায় চড়েন। প্রায় দুই শতাধিক ঘোড়া বিনোদনে ব্যবহার করা হয়।

বৈশ্বিক মহামারির সংকটকালীন পর্যটকের সংখ্যা কমে যাওয়ায় কক্সবাজারে বছরব্যাপী আর্থিক জোগানের উৎস ঘোড়াগুলো খাদ্যের অভাবে মারা যাচ্ছে। সম্প্রতি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী খাবারের অভাবে দুর্বল অসুস্থ হয়ে পড়ছে ঘোড়াগুলো। গত এক মাসে খাদ্যের অভাবে ২১টি ঘোড়ার মৃত্যু ঘটেছে এবং গত বছরের প্রথম দফায় লকডাউনের সময়ে খাদ্য সংকটে ৪০টির বেশি ঘোড়ার মৃত্যু হয়েছে মর্মে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।  ঘোড়ার মালিক ও তত্ত্বাবধায়কেরা ঘোড়ার খাদ্য জোগান না দিয়ে ঘোড়াগুলোকে রাস্তায় ছেড়ে দিচ্ছেন।

দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী, কোনো প্রাণীকে প্রয়োজনীয় খাদ্য না দেওয়া এবং অসুস্থ অবস্থায় লোকালয়ে মুক্ত করে দেওয়া প্রাণীর প্রতি নিষ্ঠুর আচরণ হিসেবে গণ্য হবে এবং তা দণ্ডনীয় অপরাধ। তাই কক্সবাজারে থাকা ঘোড়া, ঘোড়ার মালিক ও তত্ত্বাবধায়কদের তালিকা করে ঘোড়াগুলোর জন্য নিরাপদ আবাসন ও খাদ্য নিশ্চিত করা এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে এ নোটিশ দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!