ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | মাতৃদুগ্ধ শিশুর অধিকার : রাষ্ট্রপতি

মাতৃদুগ্ধ শিশুর অধিকার : রাষ্ট্রপতি

Hamid-LF-20170801094759

নিউজ ডেক্স : সুস্থ ও নিরোগ জাতি গঠনে সকল মাকে তাদের দুগ্ধপৌষ্য শিশুদের মাতৃদুগ্ধ পান করানোর আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে তিনি এ আহ্বান জানান।

মাতৃদুগ্ধপানের গুরুত্ব ও উপকারিতা বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে অন্যান্য বছরের মতো এ বছরও ‘বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ’ পালিত হচ্ছে জেনে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন। বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহের এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘মাতৃদুগ্ধপান টেকসই করতে আসুন ঐক্যবদ্ধ হই, যথার্থ হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মাতৃদুগ্ধ শিশুর জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং সর্বশ্রেষ্ঠ খাদ্য, যা শিশুর পর্যাপ্ত পুষ্টি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নিশ্চিত করে। মাতৃদুগ্ধ শিশুর অধিকার। ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর মাতৃদুগ্ধপানের মাধ্যমে শিশুর সম্ভাবনাময় জীবনের শুরু হয়। মূলত মাতৃদুগ্ধ শিশু ও মা উভয়ের সুস্বাস্থ্য, দৈহিক ও মানসিক বিকাশসহ সামগ্রিক জীবন মান উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

তিনি বলেন, প্রাচীনকাল থেকে গ্রামবাংলার মায়েরা শিশুকে বুকের দুধ পান করিয়ে আসছে। এর ফলে শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও স্বাভাবিক বেড়ে ওঠা যথেষ্ট নিশ্চিত হয়। বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও মাতৃদুগ্ধের উপকারিতা সম্পর্কে ইতিবাচক প্রচারণার ফলে মায়েরা এখন অনেক বেশি সচেতন। তৃণমূল পর্যায়ে এ সচেতনতা ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যেই প্রতিবছর বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালিত হচ্ছে।

আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ সাফল্যের সঙ্গে উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে। মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুর হার অনেক কমে এসেছে। টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে শিশুর সুস্বাস্থ্য ও কল্যাণ নিশ্চিত জরুরি। শিশুকে মায়ের দুধের পাশাপাশি ঘরে তৈরি খাবার খাওয়ানোর মাধ্যমে ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি’র অন্যতম লক্ষ্য অর্জিত হবে।

biman-ad

তিনি আরও বলেন, ১৯৯২ সাল থেকে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উদযাপনের মাধ্যমে শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানোর পক্ষে জনসচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। তা সত্ত্বেও পারিবারিক ও সামাজিকভাবে মায়েদের মাতৃদুগ্ধপানে উৎসাহিত করতে হবে এবং বিকল্প শিশু খাদ্যের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে কর্মজীবী মায়েদের জন্য মাতৃকালীন সুরক্ষা বিধানে সংশ্লিষ্ট সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাসমূহকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি গুঁড়োদুধের পক্ষে রমরমা বাণিজ্যিক প্রচারণাও নিরুৎসাহিত করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!