ব্রেকিং নিউজ

বন্ধু

97

-ওয়ারদাতুল জিনান

জীবনের খেলাঘরে পরাজিত হওয়ার ভয়ে
করেছিলাম সংকল্প ফুলের ডালি দেবনা কাউকে।
সংঙ্গহীন কাটাবো দিন এই সুন্দর ধরাতলে
অবশেষে ভেঙে গেল সেই প্রতিরোধ বাঁধ,
ঘটল ইতি এই নিঃসঙ্গ পথ চলার।
বন্ধু, তুমি এসে দাঁড়িয়েছ বলে, ব্যথার সমব্যথী হয়ে
আনন্দের ফল্গুধারা নিয়ে আমার হৃদয় প্রাঙ্গণে।
হারিয়ে যাওয়া অতীতে একদিন স্মৃতির ক্যানভাসে,
কাঁশফুলবনে সারসের ঝাঁকে, শাপলা-শালুকের দেশে
প্রাণান্ত খুঁজেছিলাম যাকে বহুবার।
আজ সেই তুমি কাছে অতি কাছে হৃদয় গহীনে,
ভালবাসায় বন্ধু আমায় দিলে রাঙিয়ে।
প্রাপ্তির আনন্দে আজ আমি পুলকিত, প্রাণোচ্ছল
সপ্নীল সপ্তডিঙা যেন পাল তুলে যেতে চায় দূরে,
মেঘের ভেলায় চড়ে মন ছুটে যায় অচিনপুরীতে
শুধু তুমি ভালবেসে দুহাত বাড়িয়েছ বলে।
বন্ধু, তুমি এসেছ বলে আজ গভীর তমসার বুকে
হৃদয়ের তামান্না যেন উপচে পড়ছে প্রদীপ শিখা হয়ে,
সবকটি পুষ্পকুঁড়ি খিলখিলিয়ে হাসছে হৃদয়কাননে
উল্লাসে মন যেন আজ গীত চায় গাহিতে।
বন্ধু, যদি কখনো অবেলায় মিশে যাই কালের স্রোতে,
প্রকৃতির মাঝে, না ফেরার দেশে,
তবু ভালবাসার এ বন্ধন থাকবে অটুট সযত্নে হৃদয় কুঁটিরে।
একফোঁটা বৃষ্টি হয়ে তখনো বন্ধু তোমায় দেব ছু্ঁয়ে
মৃদু হাওয়া সেজে পরশ বুলিয়ে দেব তোমার ক্লান্ত বদনে,
কখনোবা কৃষ্ণচূড়ার মত লালাবৃষ্টি ছড়াবো তোমার প্রাঙ্গনে
হয়তোবা হাসনাহেনা হয়ে বাতায়ন পাশে সুরভী দেব বিলিয়ে।
শুভ্র- সকালে শিশিরবিন্দু হয়ে তোমার চরণ দেব ভিজিয়ে
কখনোবা নিশিতে জোনাকির মাঝে তুমি আমায় খুঁজে পাবে,
এভাবে নিভৃতে ভালবেসে যাব তোমায় অনন্তকাল ধরে
থাকব বেঁচে ভালবাসার নীরব সাক্ষী হয়ে ধরিত্রীর বুকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*