ব্রেকিং নিউজ
Home | সাহিত্য পাতা | ফিরোজা সামাদ’র ৩টি কবিতা

ফিরোজা সামাদ’র ৩টি কবিতা

415

একজন মানুষ জাতির স্বপ্ন

দেখেছি অামি একটি মানুষ কোটি মানুষের ছায়া,
জাতির পিতা শেখ মুজিবর মাতৃভুমির মায়া !!

মায়া জড়ানো ছায়া ছড়ানো যেমন গাছের পাতায়,
স্বদেশ মমতা জড়িয়ে ছিলো তাঁহার বিশাল ছাতায় !!

পথিক যেমন বাঁশরি বাজায়ে জুড়ায় গায়ের ঘাম,
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ছিলো তেমনি গাছের নাম !!

যে নামের সাথে মিলেমিশে অাছে স্বাধীনতার জয় গান,
সে নামের মাঝে হয়েছে বিলীন লক্ষ বীরের প্রাণ !!

যিনি দেখালেন স্বাধীনতার স্বপ্ন বীর হয়েছিলো জাতি,
কোন রাক্ষসে মুছে দিলো সব নেভালো দেশের বাতি ?

মরি লজ্জায় দিতে পরিচয় যখন বিশ্ব জানতে চায় ?
মুজিবকে মেরে কি করে ঘুমাই মখমলে রঙিন শয্যায় ?

কতো কৃতজ্ঞ বাঙালি জাতি নিয়ে মুজিবের রক্ত,
হলি উল্লাসে নরপশুর মতো খেলায় হলো মত্ত্ব !!

যার বুকে ছিলো প্রিয় স্বদেশ জনতা ছিলো অভিধানে,
কোথায় রেখেছে নির্মম খুনিরা বিশ্ববাসী তা জানে !!

একটি মানচিত্র একটি পতাকা স্বাধীনতা পাওয়ার অাশে,
করলো লড়াই দিয়ে কতো প্রাণ বিজয় কি তাতে অাসে ?

অাসলো শুধু সুবিধাবাদী কিছু লালসা সম্পন্ন লোকের,
তাই পনেরো অাগষ্ট মায়ের বুকে পড়লো ছায়া শোকের !!

সবুজ মায়ের রাঙা বুকে অার হয়না স্বপ্নের চাষ
কী করে কাটাবে স্বাধীনতায় মায়ের সন্তান বারোমাস ?

বাংলার অাকাশে এখনো অাছে নিশুতি অাঁধারী ছায়া,
পাকিস্তানি অাত্মা ঘুরে বেড়ায় মানুষরূপী কিছু কায়া !!

ফিরেফিরে অাসে বুকে ক্ষত নিয়ে নির্মম অাগষ্ট মাস ,
কাঁদছে বাংলা কাঁদছে  মাতৃভুমি দেখে স্বাধীনতার সর্বনাশ !!
——————————————————————————

যার জন্য পেলাম বাংলাদেশ

বাংলাদেশের এক দামাল ছেলের গল্প বলি শোনো ,
হ্যামিলনের বংশীবাদকের মতো যাদু জানতো যেনো !!

স্বদেশকে ভালোবাসতেন তিনি মনপ্রাণ উজাড় করে,
তার অমূল্য জীবন দিলো বিসর্জন এই দেশের তরে !!

পশ্চিমা ঘৃণ্য হায়েনারা তখন করত এদেশ শোষণ,
শোষিত জনতার মুক্তির কথা শুধু ভাবতো প্রতিক্ষণ !!

বিশাল মনের মানুষ ছিলেন আরো ছিলো উদারদৃষ্টিভঙ্গি ,
তার সততায় মুগ্ধ হয়ে সারে সাত কোটি জনতা ছিলো সঙ্গী !!

অপরাজিত দামাল ছেলে থাকে প্রতিজ্ঞায় অবিচল,
এই বাংলা ছাড়া করবে ওদের মন তার সদা চঞ্চল !!

তাই একদিন বজ্র কন্ঠে শোনালেন তার সাম্যের কবিতা ও গান,
সে গানের সুরে তিরিশ লক্ষ জনতা দিলো রক্ত ও প্রাণ !!

এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম বললেন যবে তিনি,
এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম বলে ইতিহাস হন তখনি !!

এই গানের কথায় বর্বরতায় লিপ্ত হয় পশ্চিমা হানাদার ,
তাদের দোসর হয় তখন এই দেশের কুলাঙ্গার রাজাকার !!

যার ত্যাগ তিতিক্ষায় পেয়েছি মোরা সোনার বাংলাদেশ,
তাহার গল্প প্রতিদিন বললেও হবেনা কোনোদিন শেষ !!

সেই দামাল ছেলের নামটি জেনো শেখ মুজিবুর রহমান,
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু উপাধি দিয়ে প্রতিদিন জানাই সম্মান !!!!
——————————————————————————
ইহা স্বপ্নের সত্যি কথন

দেখিনু স্বপনে ঘুমো ঘোরে অাসিলো সে নামিয়া,
স্বর্গ থেকে ফিরিয়া কহিলো শুনো তবে মন দিয়া !!

দৃপ্তকন্ঠে বলিলো সে মোরে দেশ ভালোবাসো মা,
সম্মোহিত হয়ে বলেছি শুধু বাবা বাবা বাবা !!

সহাস্য বদনে দাঁড়িয়ে ছিলো বাবার তনয়া পাশে,
ঘুমিয়ে থাকা তারকা রাজি জ্বলে উঠলো সহাস্যে !!

সেই বজ্রকোমল কন্ঠ অার মমতায় মাখা মুখ,
দেখিলাম অামি স্বপ্ন সারারাত হৃদয়ে জমলো সুখ !!

স্বপন ঘোরে দেখিয়াছি অামি সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি,
জাতির পিতাকে ডাকি সত্যি সারারাত বাবা বলি !!

ঘুম ভেঙ্গে দেখি নেই সে নেই রয়ে গেছে তার রেশ,
জাতির পিতাকে বাবা বলেছি মনটি লাগছে বেশ !!

যে কথাটি স্বপ্নে বললেন বাবা অামার হৃদয় গহীণে,
করবো পালন সেই অাদেশ অামি সততায় মনেপ্রাণে !!

স্বপ্ন যে কেনো হয়না সত্যি ব্যাথায় ভাঙ্গে বুক,
জাতির পিতা জাতির পিতা তুমিই মনের সুখ !!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*