Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | চুনতির চান্দায় জায়গা-জমির বিরোধের জের : এক মহিলা গুরতর আহত

চুনতির চান্দায় জায়গা-জমির বিরোধের জের : এক মহিলা গুরতর আহত

image_printপ্রিন্ট করুন

21764154_490365197989743_1555463066_o

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া উপজেলা চুনতি ইউনিয়নের চান্দা এলাকায় গত ১২ সেপ্টেম্বর জায়গা-জমির বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের আক্রমণে এক মহিলা গুরতর ও অপর দু’জন আহত হয়েছে। গুরত আহত মহিলা হলেন চান্দা এলাকার মৌলানা বশির আহমদের স্ত্রী আয়েশা বেগম। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত অন্যান্যরা হলেন মোঃ ইউনুচ ও মৌলানা বশির আহমদ।

এ ব্যাপারে ১৩ সেপ্টেম্বর মৌলানা বশির আহমদ বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে লোহাগাড়া থানায় মামলা রুজু করেছেন। মামলা নং- ১১। আসামীরা হলেন যথাক্রমে চুনতি চান্দা এলাকার মৃত মৌলানা আবদুল জব্বারের পুত্র মৌলানা মনির আহমদ (৬০), মৌলানা মনির আহমদের পুত্র হিজবুল্লাহ (২২), আবু হানিফা মোঃ নোমান (২৬), আবুল কালাম মোঃ এরফান (২৪), হাফিজ উল্লাহ (২০) ও স্ত্রী আয়শা খানম (৪৫)।

এজাহার সূত্রে প্রকাশ, প্রতিপক্ষের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। প্রতিপক্ষরা দীর্ঘদিন যাবত তাদেরকে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করার পায়তারা করে আসছিল। ঘটনার দিন প্রতিপক্ষরা দা, রড, কুড়াল, কিরিচসহ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেআইনী জনতাবদ্ধ পূর্বক বাদীর বসতভিটায় রোপিত গাছপালা কাটার চেষ্টা করে। এতে বাঁধা দিলে আসামীরা ক্ষিপ্ত হয়ে বাদীর স্ত্রী আয়েশা বেগমকে ধারালো অস্ত্রদ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করলে মারাত্মক রক্তাক্ত কাটা জখম ও কিরিচের কোপে বৃদ্ধাঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। যার ফলে তার মাথায় ১৩টি সেলাই দিতে হয়েছে। আসামীদের কবল থেকে আশেয়া বেগমকে রক্ষা করতে মোঃ ইউনুচ ও বাদী মৌলানা বশির আহমদ এগিয়ে আসলে তাকেও মারাত্মক জখম করে। আসামীরা বাদীর মোবাইল সেট নিয়ে যায় এবং তার রোপিত ১৫/২০টি গাছ জোরপূর্বক কেটে ফেলে। এছাড়াও আসামীরা আহত আয়েশা বেগমের শ্লীলনতাহানী করেছে বলে এজহারে প্রকাশ। আহতদের ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা পালিয়ে যায় এবং স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আসামীরা যাবার সময় এ ঘটনার ব্যাপারে আইনের আশ্রয় নিলে বাদীর ঘর-বাড়ি জ্বালিয়ে দিবে এবং প্রাণে হত্যা করার হুমকি প্রদান করে।

অপরদিকে, অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করতে না পারায় এ ব্যাপারে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!