ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে ফের সংঘর্ষ

চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে ফের সংঘর্ষ

xfull_1931686633_1508138468.jpg.pagespeed.ic.Y9XGmvNAVg

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম সরকারি কলেজে দ্বিতীয় দিনের মতো আজ সোমবার সকালে ফের ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বিবদমান দু’গ্রুপের নেতাকর্মীদের লাঠিচার্জ করলে ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা পুলিশকেও লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে। এতে পুলিশসহ ১২ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম মহানগর চকবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুল হুদা জানান, গতকাল রোববার কলেজে অনার্স প্রথমবর্ষে ভর্তি নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠানে ব্যানার টাঙানো নিয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তারই জের ধরে দ্বিতীয় দিনের মতো আজ সোমবার সকাল ১১টায় কলেজ ক্যাম্পাসে আবারও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের কলেজ ক্যা¤পাস থেকে বের করে দেয়। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে ৩ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়।

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম জানান, পুলিশ বহিরাগতদের ক্যা¤পাসের ভেতরে রেখে সাধারণ শিক্ষার্থীদের লাঠিচার্জের মাধ্যমে বের করে দিয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগের ৭ জন কর্মী আহত হন। মাহমুদুল করিম নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

চট্টগ্রাম মহানগর উপপুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসাইন জানান, সাবেক সিটি মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী ও প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি সমর্থিত স্থানীয় যুবলীগ নেতা নুর মোস্তফা টিনুর অনুসারী ছাত্রলীগের দু’গ্রুপ চট্টগ্রাম কলেজে দীর্ঘদিন ধরে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটাচ্ছে। এরমধ্যে নুর মোস্তফা টিনুর অনুসারীদের বহিরাগত বলে দাবি করে আসছে এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারীরা। এ প্রসঙ্গে নুর মোস্তফা টিনুর অনুসারী চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সবুজ মল্লিক বলেন, যার অনুসারীই হয়নি কেন, আমরাও তো কলেজের শিক্ষার্থী। কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী। তাহলে আমরা বহিরাগত হতে যাব কেন?

সংঘর্ষের সূত্রপাত নিয়ে তিনি বলেন, রোববার ক্যাম্পাসে নতুন শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা সম্বলিত ব্যানার টাঙানোর সময় প্রতিপক্ষরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। আজ সোমবারও ক্যাম্পাসে আসলেই হামলা চালায় তারা। এতে আমাদের দুই ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়। তিনি আরও বলেন, প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধ কর্মকান্ড নির্বিঘ্ন করতে কলেজে আধিপত্য বিস্তারের লড়াইয়ে নেমেছে। কিন্তু আমাদের কারণে তাতে সফল হচ্ছে না। এটাই তাদের যন্ত্রণার কারণ। – মানবজমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*