ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | কোটাবিরোধী আন্দোলনে পুলিশের বাধা : আটক ৫০

কোটাবিরোধী আন্দোলনে পুলিশের বাধা : আটক ৫০

andolon-2018-03-14-18-01-46

নিউজ ডেক্স : সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ তাদের ওপর রাবার বুলেট ও এ সময় পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

বুধবার (১৪ মার্চ) রাজধানীর হাইকোর্ট মোড় এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরি প্রত্যাশীদের ৩ জন আটক করে। পরে বিকেলে ওই ৩ জনকে ছাড়াতে গেলে আরও অন্তত ৫০ জনে আটক করে রমনা থানা পুলিশ।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মঈনুল ইসলাম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, তাদের বর্তমানে থানায় আটক রাখা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে একটি মিছিল শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ঘুরে টিএসসি, দোয়েল চত্বর হয়ে হাইকোর্ট মোড়ে অবস্থান নেয় আন্দোলনকারীরা। সেখানে পুলিশ তাদের টিয়ার শেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় সোহরাব, আরিফুল ইসলাম এবং জহির নামে তিনজনকে আটক করে পুলিশ। টিয়ার গ্যাস ও লাঠিচার্জে আহত হয় ৫-৭ জন।

শিক্ষার্থীরা ‘দাবি মোদের একটাই, কোটার সংস্কার চাই’, ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষম্যের ঠাঁই নাই, ‘কোটা সংরক্ষণ বন্ধ করো, মেধাবীদের সুযোগ দাও’ লেখাসংবলিত প্ল্যাকার্ড বহন করেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, হাইকোর্ট প্রেসক্লাব এলাকাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। তাই তাদের রাস্তা ছেড়ে দিতে অনুরোধ করেছিলাম। কিন্তু নির্দেশ না মানায় টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারীদের আহ্বায়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হাসান আল মামুন বলেন, ‘দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের আন্দোলন চলবে।’

উল্লেখ্য, সরকারি চাকরিতে নিয়োগে ৩০ শতাংশ কোটা সংরক্ষিত আছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জন্য। এর বাইরে ১০ শতাংশ নারী কোটা, পশ্চাদপদ জেলাগুলোর জন্য আরও ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য পাঁচ শতাংশ এবং এক শতাংশ কোটা আছে প্রতিবন্ধীদের জন্য। এসব কোটা বৈষম্যমূলক দাবি কয়েক সপ্তাহ যাবত রাজপথে আন্দোলন করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*