ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | উখিয়ায় কারসাজিতে বাজার ইজারা : জনমনে চরম অসন্তোষ

উখিয়ায় কারসাজিতে বাজার ইজারা : জনমনে চরম অসন্তোষ

43

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া : কক্সবাজারের উখিয়ায় মহল বিশেষের কারসাজিতে উপজেলার কয়েকটি হাটবাজার ইজারা নিয়ে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে জনগনের মাঝে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারী উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে হাটবাজার ইজারা সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা ৮টি হাটবাজার ইজারা সরকারি বিধি মোতাবেক হওয়ার বিধান থাকলেও উখিয়া দারোগা বাজার ইজারা নিলামে জনমনে অসন্তোষ পরিলক্ষিত হয়েছে।বাজার মুল্যের দুইগুন দামে উখিয়া দারোগা বাজার ইজারা দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ৩লাখ টাকায়। অতিরিক্ত এই ৫০লাখ টাকা জনগনের ঘাড়ে বর্তাবে বলে সচেতন মহল মনে করেন।ইজারাদার জনৈক ব্যক্তি যেখানে ৫০ থেকে ৬০লাখ টাকায় বাজার ইজারা নেওয়ার যোগ্যতা রাখে, সেখানে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ৯৫লাখ টাকায় ইজারা নেন। ভ্যাট সহ বাজার ইজারা মুল্যের অংক দাঁড়ায় প্রায় ১কোটি ৪ লাখ টাকা। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়বে উখিয়ার সর্বসাধারন তথা ক্রেতা-বিক্রেতারা।অভিযোগ উঠেছে, একটি মহল বিশেষের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদে চড়া মুল্যে বাজারটি ইজারা হয়। গত মঙ্গলবার এ খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে সচেতন মহল সহ সাধারন মানুষের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কারন বাজারটি প্রতি বছর ৫০-৫৫লাখ টাকায় ইজারা হলেও এ বছর আকাশচুম্বি দামে ইজারা হওয়ায় শোষনের শিকার হবে উখিয়ার মানুষ। এ টাকা জনগনের উৎপাদিত কৃষিপণ্য সহ ইত্যাদি মালামাল থেকে অতিরিক্ত টোল আদায় হবে।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছেনুয়ারা বেগম বলেছেন উখিয়া দারোগা বাজার নিলাম প্রক্রিয়ায় জনগনের উপর চাপ পড়বে। কারন অতিরিক্ত কিছুই ভাল নয়। বাজার নিলামে সিন্ডিকেট ভেঙ্গে গেলেও সর্বোচ্চ দরদাতা বাজার পাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে কৃষক সমাজ। সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ ব্যাংক ও এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ক্ষেত খামার করে উৎপাদিত ফসল ও শাক সবজি বিক্রি করে যা পাবে তার অর্ধেক টাকা ইজারাদারের টোল আদায়কারীকে দিতে হবে। তারা হতাশ হয়ে বাড়িতে যাবে এটা আমি চাইনা। যেহেতু আমি জনগনের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি।এ প্রসঙ্গে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, অতিরিক্ত চড়াদামে বাজার ইজারা নিয়ে সাধারণ মানুষের টাকা হাতিয়ে নেবে এটা হতে পারেনা। সরকারের রাজস্ব আদায় করতে গিয়ে মানুষের উপর হয়রানী ও আর্থিক ক্ষতির প্রভাব যাতে না পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। অন্যথায় মানুষের প্রতি অবিচার করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*