ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়ায় শঙ্খের ভাঙনে বিলীন ১১০ বসতবাড়ি

সাতকানিয়ায় শঙ্খের ভাঙনে বিলীন ১১০ বসতবাড়ি

1531223263

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়া উপজেলার ৫নং আমিলাইষ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডসহ সিকদারপাড়া গ্রাম শঙ্খের ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। চলতি বছরের দু’বারের বন্যায় চোখের পলকেই নদীগর্ভে তলিয়ে গেছে পুরো এলাকার ১১০ বসতবাড়ি। চলতি মাসের কয়েকদিনের টানা বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় এ এলাকায় শঙ্খের ভাঙনে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে নুরুল আমিন বাবুল মেম্বার, মোঃ ইউচুপ, মোঃ হুমায়ুন, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ফরিদুল আলম, আবদুস ছালাম, আহমদ হোসেন, আইয়ুব আলী, নুরুল আলম, আবদুল মজিদ, আবদুল করিম, জামাল আহমদ, সফিক আহমদ, জমির হোসেন, মোঃ সিরাজ, মোঃ আলম, আবদুর রহমান, জাহাঙ্গীর আলম, জিললুর রহমান, ফরিদুল আলম, আহমদর রহমান, নুরুল আবচার, মোঃ হোসেন, মোঃ ইদ্রিস, মোঃ আলম, মফিজুর রহমান, আমিন শরীফ, মোঃ হাসান, ইয়াকুব হোসেন, আহমদ ছফা, নুর হোসেন, মাইনুদ্দীন, নাছিরউদ্দিন, মোহাম্মদুর রহমান, শাহজাহান, ও মহিউদ্দিনের বসতঘরসহ ১১০ বাড়ি।

সরেজমিনে দেখা গেছে, এখনো ভাঙনের মুখে রয়েছে পশ্চিম আমিলাইষ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পশ্চিম আমিলাইষ দাখিল মাদ্রাসাসহ আরো দু’শ’ বসতঘর ও দোকান। তাছাড়া যে কোনো সময় নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে এ এলাকার গুরুত্বপূর্ণ আমিলাইষ-চরতীর পিচ ঢালাই করা সড়ক। ইতোমধ্যে ভাঙন প্রতিরোধে ইউনিয়নের ২নং ও ৩নং ওয়ার্ড এলাকার কিছু অংশে পানি উন্নয়ন বোর্ড সিসি ব্লক দিলেও ৩নং ওয়ার্ড সম্পূর্ণ অরক্ষিত রয়ে গেছে যার কারণে আগামীতে পাহাড়ি ঢলের পানি নামলে যে কোনো মুহূর্তে ৩নং ওয়ার্ডের সিংহভাগ এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোবারক হোসেন জানান, জেলা প্রশাসকের কাছে ক্ষতিগ্রস্তদের একটি তালিকাও পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের তিনটন চাল প্রদান করেছি। তাছাড়া নির্বাহী প্রকাৈশলী বিদ্যুত্ কুমার সাহা জানিয়েছেন উক্ত কাজের ওয়ার্ক অর্ডার হয়েছে।

আমিলাইষ ইউপি’র চেয়ারম্যান এইচএম হানিফ জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ড জরুরি পদক্ষেপ না নিলে এ মৌসুমে ভাঙনের তীব্রতা থেকে অবশিষ্ট বসতঘরগুলো আর অত্র এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি রক্ষা করা সম্ভব হবে বলে মনে হয় না। পানির স্রোতে বিলীন হওয়া ১১০ বাড়ির লিস্ট করে একটি দরখাস্তে স্থানীয় এমপি মহোদয়ের নিকট হতে সুপারিশ নিয়েছি। এটি ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়ে দাখিল করব। পানি উন্নয়ন বোর্ডের পটিয়া জোনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী অনুপম দাশ জানান, আমিলাইষ এলাকায় শঙ্খ নদীর দু’তীরেই প্রচন্ড ভাঙন চলছে। এ ব্যাপারে ্ওই এলাকায় কাজ করার জন্য ভিজিডি পাস হয়েছে, ওয়ার্ক অর্ডার হয়েছে। এদিকে ভিটেবাড়িহারা নিঃস্ব মানুষগুলো যাযাবরের মত এখান থেকে ওখানে খোলা আকাশের নিচে কিংবা গাছতলায় আশ্রয় পেতেছে।

সূত্র : দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*