Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকে গণপিটুনি দিয়ে অস্ত্রসহ পুলিশে সোপর্দ

সাতকানিয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকে গণপিটুনি দিয়ে অস্ত্রসহ পুলিশে সোপর্দ

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়ায় এক ছাত্রলীগ নেতাকে গণপিটুনি দিয়ে অস্ত্রসহ পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। তার নাম মো. আজম উদ্দীন (২১)। তাকে আটককারী এলাকার লোকজন জানায়, যুবলীগ নেতা জিয়াবুল হোসেন লেডুকে গুলি করার সময় অস্ত্রসহ আজমকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

অন্যদিকে আটককৃত ছাত্রলীগ নেতা ও ধর্মপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ চৌধুরীর দাবি আজমকে একা পেয়ে জিয়াবুল হোসেন লেডুর নেতৃত্বে মারধর করার পর নিজেরা অস্ত্র দিয়ে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। পুলিশ বলছে, অস্ত্রটি আজমের কাছে ছিল নাকি মারধরের পর দেয়া হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আজ শনিবার (৭ নভেম্বর) উপজেলার ধর্মপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটককৃত মো. আজম উদ্দীন ধর্মপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের চাঁদের পাড়ার আলী আহমদের পুত্র। তিনি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও ধর্মপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

জিয়াবুল হোসেনের নিকটাত্মীয় লিয়াকত আলী বলেন, “ধৃত আজমকে এলাকার বাচা মিয়া, এমদাদ ও জাফর ইকবালসহ কয়েকজন যুবক মিলে মারধর করতে দেখি। এসময় তার কোমরে একটি অস্ত্র দেখেছি কিন্তু অস্ত্রটি আগে থেকে তার কাছে ছিল নাকি মারধরের সময় দেয়া হয়েছে সেটি আমরা নিশ্চিত করে বলতে পারব না।”

এদিকে যুবলীগ নেতা জিয়াবুল হোসেন লেডু বলেন, “ছাত্রলীগ নেতা তুহিন ও আজমের নেতৃত্বে ধর্মপুরে অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়ে চলে যাওয়ার সময় কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম মাধ্যমিক স্কুলের সামনে আমাকে দেখতে পেয়ে আজম আমাকে বুকে বন্দুক তাক করলে আমার সাথে থাকা স্থানীয় লোকজন আজমকে আটক করে মারধরের পর পুলিশে দিয়েছে।”

ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ চৌধুরী জানান, মুহুরী পাড়ার ছাত্রলীগ নেতা শিমুলের বসতঘরে গত সপ্তাহে লেডুর নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও মালামাল লুট করা হয়। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। আজ শনিবার দুপুর ১২টার সময় সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী তুহিন, ধর্মপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আজমসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী নিয়ে ভাঙচুরকৃত বসতঘর পরিদর্শন ও দীর্ঘদিন থেকে অসুস্থ ধর্মপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীরের বাড়িতে গিয়ে তার চিকিৎসার খোঁজখবর নিয়ে দুপুর দেড়টার সময় তুহিনরা মোটরসাইকেল নিয়ে ফিরে আসে। আর আজম একা বাড়িতে ফেরার সময় লেডুর নেতৃত্বে আজমকে আটক করে মারধর করে একটি অস্ত্র দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনাটি জিয়াউল হোসেন লেডুর সাজানো নাটক।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, ধর্মপুরে এক যুবককে আটক করে মারধর করার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে একটি অস্ত্রসহ আজমকে পুলিশের নিকট সোপর্দ করে। পুলিশ তাকে নিয়ে এসে প্রথমে সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়। পরে থানায় নিয়ে আসে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রটি আজমের কাছে ছিল নাকি মারধরের ঘটনার পর অন্য কেউ দিয়েছে তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। তদন্তপূর্বক প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। দৈনিক আজাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!