ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে কার্যক্রম ব্যাহত

লোহাগাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে কার্যক্রম ব্যাহত

06

মোঃ জামাল উদ্দিন : লোহাগাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ উদ্দিন খান দীর্ঘ ৬ মাস যাবত পরিষদে অনুপস্থিত রয়েছেন। ফলে উপজেলা পরিষদে ন্যস্ত সকল বিভাগের কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতির কারণ অজ্ঞাত। তবে লোহাগাড়া থানা সূত্রে জানা যায়, তিনি নাশকতা, সন্ত্রাসসহ বিভিন্ন ধারায় মামলার অভিযুক্ত আসামী। গ্রেফতার এড়াতে তিনি লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদে আসছেন না বলে পুলিশ সন্দেহ পোষণ করছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তিনি সর্বশেষ এ বছর মে মাসে লোহাগাড়ায় এসেছিলেন। তার বিরুদ্ধে আনীত মামলার অভিযোগে হাইকোটে উপস্থিত হয়ে জামিন প্রার্থনা করেছিলেন বলে প্রকাশ। হাইকোট তাকে নিু আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। তবে তিনি নিু আদালতে হাজির হননি। গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপন করে আছেন। তার অনুপস্থিতিতে জনসাধারণের দূর্ভোগ ও বিভাগীয় কার্যক্রমে স্থবিরতার বিষয়ে গত সেপ্টেম্বর মাসে লোহাগাড়া উপজেলা আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক কমিটির সভায় বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যানগণ উপস্থিত প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী এমপি’র দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন। তিনি (এমপি) উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান নুরুল আবছারকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলেছিলেন। আইনী জটিলতায় তারাও ব্যবস্থা নিতে পারছেন না। বিশেষ করে আর্থিক লেনদেন বিষয়ে চেয়ারম্যান ও ইউএনও’র ব্যাংক চেকে যৌথ স্বাক্ষর করতে হয়। ২০১৫ সাল শেষ হতে চলেছে। উপজেলার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর প্রকল্প গ্রহণ ও টেন্ডার আহবানের বিষয়ে চেয়ারম্যানের উপস্থিতি একান্ত আবশ্যক বলে উপজেলা প্রকৌশলী প্রতিপদ দেওয়ান জানিয়েছেন। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতির বিষয়ে অতি সম্প্রতি লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিস সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। গত ১২ নভেম্বর চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় বরাবরে নির্দেশনা চেয়ে চিঠি দিয়েছেন বলে জানা যায়। তবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কোন নির্দেশনাও লোহাগাড়ায় আসেনি। দিন দিন এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করছে। একটি প্রভাবশালী মহল স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে প্রভাব বিস্তার করছে, যাতে ব্যবস্থা গৃহিত না হয়। তার জন্য তদবীর শুরু করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ভূক্তভোগীরা অনতিবিলম্বে চেয়ারম্যানের উপস্থিতি নিশ্চিত করে জনদূর্ভোগ লাঘবের জন্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী এমপি’র হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*