ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | কুয়াশার চাদরে শীতের আগমনী বার্তা

কুয়াশার চাদরে শীতের আগমনী বার্তা

33-1

নিউজ ডেক্স : কুয়াশার চাদর নিয়ে আগমন হলো শীত মৌসুমের। সাথে নিয়ে এলো বৃষ্টিও। সকাল থেকে বৃষ্টির সাথে কুয়াশা মোড়ানো শীত সকালে কর্মব্যস্ত মানুষদের মাঝে ঘুমের রেশও বাড়িয়ে দেয়। সূর্য মামাকেও সকালে উঠতে দেয়নি গতকাল। সারাদিন মেঘ আর কুয়াশায় ঢাকা ছিল সূর্য। তবে বিকেলের দিকে একটু দেখা মিললেও ততক্ষণে কমে এসেছে তাপের প্রখরতা। শীতের আগমনে লঘুচাপ যুক্ত হওয়ায় ঠাণ্ডার সাথে বৃষ্টি মাখা এই আবহাওয়া বজায় থাকবে আরো কয়েকদিন। তাপমাত্রা হ্রাস পাওয়ার সাথে সাথে গতকাল নগরীতে বৃষ্টিপাতও হয় ৫ মিলিমিটারের মতো, যা সারাদেশের মধ্যে সর্বোচ্চ। এছাড়া সন্দ্বীপ ও রাঙামাটিতে ১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের রেকর্ড করা হয়।

চট্টগ্রাম আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, মৌসুমী লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে, যার বর্ধিতাংশ উত্তর–পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের দু–এক জায়গায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আগামী দুইদিন বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে এবং আগামী তিনদিন রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। গতকাল চট্টগ্রামে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং নগরীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা আগের দিন ছিল ২১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া সারাদেশের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় টেকনাফে ৩২ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন রাজশাহীর বদলগাছীতে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চট্টগ্রামে গতবছর শীতের প্রকোপ তেমন ছিল না। বিশেষ করে নগরীতে শীতের মাত্রা অনেক কম ছিল উল্লেখ করে চট্টগ্রাম আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ আতিকুর রহমান বলেন, এই বছর শীতের মাত্রা বাড়তে পারে নগরীতে। সেই সাথে গোটা চট্টগ্রামেও গতবারের শীত মৌসুমের তুলনায় এবছর শীতের মাত্রা বেশি হতে পরে। গতকাল কুয়াশামাখা ঠাণ্ডার সাথে লঘুচাপের কারণে বৃষ্টি যোগ হওয়ায় সেটাই বোঝা যাচ্ছে। আর কয়েকদিনের মধ্যে প্রতিদিন নিয়মিতভাবে তাপমাত্রা হ্রাস হতে থাকবে। গত কয়েকদিন ধরেও তাপমাত্রা হ্রাসমান। তাই এবারের মৌসুমে স্বাভাবিক থাকবে শীতের আবহাওয়া। অর্থাৎ এখন থেকে তাপমাত্রা হ্রাসের সাথে সাথে শীতের প্রকোপ বাড়বে। –আজাদী প্রতিবেদন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*